kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ মাঘ ১৪২৮। ২৭ জানুয়ারি ২০২২। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মনোনয়ন বাণিজ্যসহ ৫ কারণে লক্ষ্মীপুরে নৌকাডুবি!

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২৯ নভেম্বর, ২০২১ ২১:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মনোনয়ন বাণিজ্যসহ ৫ কারণে লক্ষ্মীপুরে নৌকাডুবি!

মনোনয়ন বাণিজ্যসহ ৫ কারণে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ ও রায়পুর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হেরেছেন। গতকাল রবিবার দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাছে তাদের পরাজয় হয়। স্থানীয় নেতাকর্মী ও ইউনিয়নের বাসিন্দাদের ভাষ্যমতে, প্রার্থীদের তৃনমূলের নামের তালিকা প্রস্তুতে অনিয়ম, মনোনয়ন বাণিজ্য, জনবিচ্ছিন্ন প্রার্থীদের মনোনয়ন, জেলা-উপজেলা-ইউনিয়নের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে দ্বদ্ব, তৃনমূলের নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নের কারণে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা হেরেছেন।

রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর, লামচর, করপাড়া, ভোলাকোট, ভাটরা, চন্ডিপুর, রায়পুরের উত্তর চরআবাবিল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হেরেছেন।

বিজ্ঞাপন

তারা প্রত্যেকেই বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের উপজেলা ও ইউনিয়নের নেতৃত্বে রয়েছেন।

এদিকে রায়পুর উপজেলার উত্তর চরআবাবিল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. শহীদ উল্যা ৯ কেন্দ্রের একটিতেও জিতেননি। বিদ্রোহী প্রার্থী জাফর উল্যা দুলাল হাওলাদার প্রায় ৭ হাজার বেশি ভোট বেশি পেয়ে জয়ী হয়েছেন।

ভাটরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন মিঠু বলেন, জেলা-উপজেলা থেকে প্রার্থীর তালিকায় আমার নাম দেওয়া হয়নি। টাকার বিনিময়ে নব্যদের নাম কেন্দ্রে জমা দেওয়া হয়েছে। তারপরও আমি মনোনয়ন পেয়েছি। কিন্তু কেউই আন্তরিকভাবে আমার নির্বাচন করেনি। এজন্য হারতে হয়েছে।

রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সফিক মাহমুদ পিন্টু বলেন, মনোনয়ন বাণিজ্য ও আমাদের নেতাকর্মীদের সমন্বয়হীনতার কারণে নৌকা হেরেছে এটা সত্য। তবে মনোনয়ন বাণিজ্যের সঙ্গে আমি জড়িত নই। কারা জড়িত তা আমি দলের কেন্দ্রীয় সিনিয়র নেতাদেরকে জানিয়েছি।

জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু বলেন, দলের প্রার্থীদের ভুলের কারণে কয়েকটি ইউনিয়নে হেরেছেন তারা। ভবিষ্যতে যেন এসব না হয়, সেভাবে নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে রবিবার লক্ষ্মীপুর পৌরসভা, রায়পুর ও রামগঞ্জের ২০ টি ইউনিয়নে ভোট হয়েছে। ইছাপুর ইউনিয়নে নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতা নৌকার এজেন্ট সাজ্জাদুর রহমান সজিবের মৃত্যু হয়।



সাতদিনের সেরা