kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নির্বাচিত চেয়ারম্যানের সমর্থকদের হামলায় পরাজিত প্রার্থীর ৫ সমর্থক আহত

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

২৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নির্বাচিত চেয়ারম্যানের সমর্থকদের হামলায় পরাজিত প্রার্থীর ৫ সমর্থক আহত

মাদারীপুরের রাস্তি ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তীতে ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে এক পক্ষের হামলায় কমপক্ষে ৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় এ সংঘর্ষ হয়।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার রাস্তি ইউনিয়নের নির্বাচন শেষে পূর্ব রাস্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণার পরে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন মোল্লার (মটর সাইকেল প্রতীক) কর্মী সমর্থকরা পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী তানভীর আহমেদ রুবেল বেপারী (চশমা প্রতীক) কর্মীদের সঙ্গে ভোট গণনা নিয়ে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে।

বিজ্ঞাপন

 

এসময় বিল্লাল মোল্লার কর্মী সমর্থকরা তানভীর আহমেদ রুবেল বেপারীর সমর্থক মামুন সরদার (৩৪), সাব্বির আহমেদ সোহাগ (৩৫), লিটন বেপারী (৫০)সহ পাঁচ জনকে হামলা করে আহত করে। পরে আহতদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত সাব্বির আহমেদ সোহাগ বলেন, ‘ভোট গ্রহণ শেষে সন্ধ্যায় যখন পূর্ব রাস্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট গণনা শেষ হয়। তখন আমরা ভোট গণনা নিয়ে প্রশ্ন তুললে বিল্লালের লোকজন আমাদের উপরে অতর্কিত ভাবে হামলা করে।

আহত লিটন বেপারীর স্ত্রী হাজেরা বেগম বলেন, ‘আমার স্বাীকে বিল্লাল মোল্লার লোকজনে হামলা করছে। আমাদের অপরাধ আমরা রুবেল বেপারীর নির্বাচন করছি। একই ধরনের কথা বললেন সাব্বির আহমেদ সোহাগের স্ত্রী ফারজানা আক্তার লুনা। তিনি বলেন, আমার হ্যাজব্যান্ডকে শুধু শুধু মারছে। আমরা রুবেল বেপারীর সমর্থক ছিলাম।

এই ব্যাপারে মাদারীপুর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, ভোট কেন্দ্রের ফলাফল প্রদানের সময় উত্তেজিত হয়ে দুই পক্ষ বিবাদে জড়ায়। এখন পর্যন্ত এই বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। আমরা অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন গিয়াস বলেন, রাস্তিতে একজন প্রার্থীর সমর্থকরা কেন্দ্রের ফলাফল নিয়ে আপত্তি তুললে হট্টগোল তৈরী হয়। পরে কয়েকজন এই ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে আমরা সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ শেষ করেছি।



সাতদিনের সেরা