kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে

ভোট না দেওয়ায় যুবকের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ১৯:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভোট না দেওয়ায় যুবকের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিনসাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে অভিভাবক সদস্য পদে ভোট না দেওয়ায় তামিম হোসেন (৩২) নামে এক ব্যাক্তিকে পিটিয়ে হাত ও পা ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের বিনাসাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত তামিম হোসেন ওই গ্রামের মো. গোলবার হোসেনের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

আহত যুবকের বাবা গোলবার হোসেন জানান, সম্প্রতি বিনসাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে ভোট না দেওয়ায় শুক্রবার সকালের বাজারের আসার সময়ে আমার ছেলেকে একই গ্রামের মৃত রফাদ আলীর ছেলে ভুট্রর নেত্বতেৃ আবুল কালাম, সোহাগ হোসেন, মামুন হোসেন অতর্কিত হামলা চালিয়ে লোহার পাইপ, রড ও লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে হাত ও পা ভেঙে দেয়। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আমার ছেলেকে উদ্ধার করে তাড়াশ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। পরে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউপি সদস্য ইলিয়াস আলী জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার স্কুল কমিটির নির্বাচনে ভোট না দেওয়ায় ও পূর্বে একটি পারিবারিক বিষয় নিয়ে মামলা তুলে নিতেই তাকে প্রতিপক্ষরা একাধিকবার হুমকি দিয়েছেন। পরে শুক্রবার সকালে তামিমকে পিটিয়ে হাত ও পা ভেঙে দিয়েছে তারা। শুধু তাই নয় ভোটের আগের রাতেও সন্ত্রাসীরা তাদের ভোট দেওয়ার জন্য হুমকি প্রদান করে।

এ বিষয়ে তাড়াশ স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে কর্তব্যরত ডা. মো. আমানুল্লাহ আমান জানান, রোগীর অবস্থা খুবই গুরুতর হওয়ায় তাকে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আঘাতের কারণে তার হাত ও পা পুরো ভেঙে গিয়েছে।  



সাতদিনের সেরা