kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩০ নভেম্বর ২০২১। ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

শার্শায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ২

বেনাপোল প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ১৭:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শার্শায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ২

যশোরের শার্শা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলার গোগা ইউনিয়নের পাঁচ ভুলোট দাখিল মাদরাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় বেশ কিছু দোকানপাট ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গোগা ইউনিয়নে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোনো সময় বড় সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। পুলিশ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় টহল জোরদার করেছে।

আহতরা হলেন- ইউনিয়নের অগ্রভুলোট এলাকার ফজর আলী (৪০), আশরাফুল ইসলাম (৩০) ও রবিউল ইসলাম (৪০)। তাদেরকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে স্বতন্ত্র প্রাথী তবিরব রহমান সমর্থকের লোকজন গোগা বাজার পোস্টার লাগাচ্ছিল। এ সময় নৌকা প্রতীকের প্রাথী আব্দুর রশিদের সমর্থকরা পোস্টার লাগাতে নিষেধ করে। বাগবিতণ্ডার এক পযার্য়ে দুইপক্ষের হাতাহাতি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এ ঘটনার জের ধরে শুক্রবার সকালে তরিকুল নামে আনারস প্রতীকের এক সমর্থকের বাড়িতে হামলা চালানোর চেষ্টা করে নৌকার লোকজন। খবর পেয়ে আনারস প্রতীকের লোকজন ছুটে এলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় সেখানে কয়েকটি বোমা বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এতে ফজের আলীর হাতে ও আশরাফুলের পায়ে গুলি এবং রবিউলের শরীরে বোমার স্প্রিন্টার লাগে।

আহতরা জানান, তাদেরকে প্রথমে শার্শার বুরুজবাগান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর সেখান থেকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শাহিনুর রহমান সোহাগ জানান, উরুতে আঘাতপ্রাপ্ত আশরাফুলের ২৪ ঘণ্টা পার না হলে কিছু বলা যাচ্ছে না। অন্য দুজনের অবস্থা শঙ্কামুক্ত।

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম খান জানান, এলাকাবাসীর মাধ্যমে জানতে পারি গোগা ইউনিয়নে পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গুলি বিনিময় হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে কেউ আহত হয়েছে কিনা তিনি নিশ্চিত ভাবে বলতে পারেনি স্থানীয়রা। তবে ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত দুইজনকে উদ্ধার করে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। এখনো থানায় কোনো পক্ষই অভিযোগ করেনি। এলাকায় পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা