kalerkantho

সোমবার । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৬ ডিসেম্বর ২০২১। ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

চালকের আসনে বেপরোয়া বাবা, দুর্ঘটনায় গেল সন্তানের প্রাণ

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি    

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ১৫:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চালকের আসনে বেপরোয়া বাবা, দুর্ঘটনায় গেল সন্তানের প্রাণ

হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের কালারডোবা এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় সিএনজি অটোরিকশার যাত্রী জান্নাত আক্তার নামে দুই বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুর পিতাসহ আরো দুই এসএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্র আহত হয়েছে। আহত অবস্থায় তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে হবিগঞ্জ শহরতলির ভাদৈ গ্রামের ভ্যানচালক সোহাগ মিয়া তার স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বানিয়াচং শহরের সিএনজি স্ট্যান্ড থেকে শ্বশুরবাড়ি শেখের মহল্লা গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন। অটোরিকশার সামনে আরো দুই এসএসসি পরীক্ষার্থী ওঠেন। চালক বেপরোয়াভাবে চালাচ্ছিলেন এবং কালাডোবা এলাকায় পৌঁছলে অটোরিকশাটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে গাড়িটি ধুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই চালক সোহাগ মিয়ার সন্তান জান্নাত আক্তার গুরুতর আহত হয়। পরে তাকেসহ আহতদের হবিগঞ্জ জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্মরত চিকিৎসক জান্নাতকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এদিকে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত চালক সোহাগ মিয়ার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। পরবর্তী সময়ে রাত ১০টার দিকে গুরুতর আহত এসএসসি পরীক্ষার্থী রাতুল আহমেদ ও তার মামা তানভীর মিয়াকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহত রাতুল আহমেদ বানিয়াচং নন্দীপাড়া গ্রামের আলকাছ মিয়ার ছেলে ও তানভীর একই গ্রামের আনহার মিয়ার ছেলে। 

বানিয়াচং থানার অফিসার (ইনচার্জ) মোহাম্মদ এমরান হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 



সাতদিনের সেরা