kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ১২ দিন পর ফিরল লাশ

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ১৫:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ১২ দিন পর ফিরল লাশ

পরকীয়া প্রেমের জেরে নেত্রকোনা মদনে আসাদুল নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কুপিয়ে আহত করার ১২ দিন পর বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) রাতে ঢাকার একটি একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এর আগে, ৭ নভেম্বর (রবিবার) রাতে উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নের বড় খাগুড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আশাদুল ওই গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে।

এদিকে, ঘটনার পরদিনেই নিহতের বাবা মদন থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে একই গ্রামের আপোষ মিয়ার ছেলে জুয়েলকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে বুধবার (১০ নভেম্বর) জেল হাজতে পাঠায় মদন থানার পুলিশ।

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গভীর রাতে রক্তাক্ত অবস্থায় আসাদুলকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে আসাদুলের বাবা অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় মামলা করলে জুয়েল নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি তদন্ত করছেন। পূর্বের দায়েরকৃত মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তরিত হবে। তদন্ত সাপেক্ষে মূল ঘটনা উদঘাটন করে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন সূতে জানা গেছে, খাগুরিয়া গ্রামের আপেষ মিয়ার ছেলে রংমিস্ত্রী সাইফুল ইসলাম দ্বিতীয় বিয়ে করেন চট্টগ্রামে বসবাস শুরু করেন। এদিকে তার প্রথম স্ত্রী রুনা আক্তার বাড়িতে থাকায় আসাদুলের সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। ৭ নভেম্বর গভীর রাতে আসাদুল রুনার সাথে দেখা করতে যান। বিষয়টি টের পেয়ে সাইফুলের ছোট ভাই আলামিন ও জুয়েলসহ কয়েকজন আসাদুলকেত কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে ফেলে রাখে। পরে প্রতিবেশী ও আসাদুলের পরিবারে লোকজন তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে আইসিইউতে বৃহস্পতিবার রাতে মারা যান তিনি।



সাতদিনের সেরা