kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩০ নভেম্বর ২০২১। ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

বড়লেখায় স্বতন্ত্রের মোড়কে বিএনপির ৫ নেতা

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি    

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ১০:২৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বড়লেখায় স্বতন্ত্রের মোড়কে বিএনপির ৫ নেতা

 

 

তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার ১০টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ হবে ২৮ নভেম্বর। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ১০ জনসহ মোট ৪৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন। এর মধ্যে পাঁচটি ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মোড়কে বিএনপির ৫ নেতা কর্মী-সমর্থকদের
নিয়ে দিনরাত নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। তাদের মধ্যে সাবেক ৩ ইউপি চেয়ারম্যান রয়েছেন। যদিও নির্বাচনে বিএনপি দলীয়ভাবে অংশগ্রহণ করেনি। তবুও উপজেলা বিএনপির এই ৫ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

এসব প্রার্থীরা বলছেন, তাদের দল নির্বাচনে অংশ না নিলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে কোনো বাধা-নিষেধ নেই। তাই তারা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছেন। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও
নিরপেক্ষ হলে তারা জয়লাভ করবেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে মাঠে প্রচারণা চালাচ্ছেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন। নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন। দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নে আনারস প্রতীক
নিয়ে মাঠে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস স্বপন।

দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নে চশমা প্রতীক নিয়ে মাঠে প্রচারণা চালাচ্ছেন উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ময়নুল হক। সুজানগর ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম।

নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ময়নুল হক বলেন, দল নির্বাচনে অংশ না নিলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চশমা প্রতীক নিয়ে তিনি নির্বাচন করছেন। এতে কোনো বাধা নিষেধ নেই। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হলে তিনি জয়লাভ
করবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আলাল উদ্দিন বলেন, আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হলে আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো।

এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান খসরু বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাদের কোনো দলীয় নির্দেশনা নেই। যে কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। এতে কোনো বাধা নিষেধ নেই। অবশ্য সেসব প্রার্থীর পক্ষে দলের কেউ প্রচারণায় অংশ নিচ্ছে না। তবে দলের কেউ যদি ব্যক্তিগত সম্পর্কের কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালায় সেটা তার বিষয়। এতে কোনো বাধা নেই।



সাতদিনের সেরা