kalerkantho

সোমবার । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৬ ডিসেম্বর ২০২১। ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

আলমডাঙ্গায় দুই প্রার্থীর অফিসে পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ

আলমডাঙ্গা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০২১ ২১:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আলমডাঙ্গায় দুই প্রার্থীর অফিসে পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার কুমারী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলার ও অফিস ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার রাতে অফিসে অবস্থানকালে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় মোটরসাইকেল ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গার কুমারী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে কুমারী গ্রাম থেকে দু'জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবু সাঈদ পিন্টু ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোজাম্মেল হক। রবিবার রাতে মোজাম্মেল হক ও আবু সাঈদ পিন্টুর নৌকার অফিসে হামলা হয়েছে বলে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করা হয়। সংবাদ পেয়ে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় আবু সাঈদ পিন্টুর সমর্থক সেলিম ও  মোজাম্মেল হকের সমর্থক হিরনকে আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনার বিষয়ে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোজাম্মেল হক জানান, রাতে তারা কয়েকজন অফিসে বসেছিলেন। এ সময় প্রতিপক্ষ নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন হামলা করে। এ সময় তাদের হামলায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি আব্দুর রাজ্জাক ও তার ভাইসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু সাঈদ পিন্টু বলেন, রাতে তার অফিসে দু'একজন ছাড়া তেমন লোকজন ছিল না। এ সময় প্রতিপক্ষ আনারস প্রতীকের সমর্থকরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমার সমর্থকদের আহত করে। তাদের হামলায় আমার সমর্থক লাভলু ও দীপন আহত হয়েছে। তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, কুমারীতে দুই প্রার্থীর অফিসে হামলার অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছি।  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। দু প্রার্থীর দু'জন সমর্থককে আটক করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা