kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

কালিয়াকৈরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ওপর নৌকা প্রার্থীর হামলা

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০২১ ২০:৩৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কালিয়াকৈরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ওপর নৌকা প্রার্থীর হামলা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরের আটাবহ ইউনিয়নের গোসাত্রা এলাকায় পুলিশের উপস্তিতিতিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ তার সমর্থকের ওপর হামলা, মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কে এম ইব্রাহীম খালেদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আজ সোমবার স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আলীম বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ করেছে। অভিযোগে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কে এম ইব্রাহীম খালেদসহ তার কয়েকজন সমর্থকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের মোটরসাইকেল প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আলীমের নির্বাচনী কর্মী গত শনিবার নির্বাচনী পোস্টার লাগাতে যান। এ সময় নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর কয়েকজন সমর্থক স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক আকাশসহ ৪/৫ জনকে মারধর করেন। এ ঘটনায় রবিবার রাতে কালিয়াকৈর থানার এসআই রায়হান তদন্ত করতে যান। এ সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী তার সহযোগীসহ রাত ৯টার দিকে সেখানে গেলে পুলিশের উপস্তিতিতে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কে এম ইব্রাহিম খালেদ ও তার সহযোগী রানা ও রেজাসহ অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন লোক স্বতন্ত্র প্রার্থীর গতিরোধ করে এবং তাদেরহামলা চালায়। হামলা চালিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও তার সহযোগী রাহিম ও আলামিনকে এলোপাথারী মারধর করে। এ ঘটনায় হামলার শিকার ওই স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমবার রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কালিয়াকৈর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

মোটরসাইকেল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আলীম সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত শনিবার রাতে আমার কর্মী আকাশের ওপর হামলা ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর লোকজন। রবিবার রাতে পুলিশ ওই ঘটনার তদন্তে গেলে তখন নৌকার প্রার্থী ও তার লোকজন আমাকে ও আমার কর্মীর ওপর হামলা চালিয়ে মারধর করে। এ সময় তিনি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিও জানান তিনি।

অভিযুক্ত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কে এম ইব্রাহিম খালেদ জানান, কোনো প্রার্থীর ওপর হামলা ও মারধরের ঘটনা ঘটেনি। আমার বিরুদ্ধে তিনি মিথ্যা অভিযোগ করেছেন। তবে তিনি উল্টো আমাকে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন।

কালিয়াকৈর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রায়হান জানান, কর্মীকে মারধর ও পোস্টার ছেঁড়ার অভিযোগের তদন্তে গেলে কথা কটাকাটির এক পর্যায় ধাক্কা-ধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। তবে কোনো মারামারির ঘটনা ঘটেনি।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এ এম শামসুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা