kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

এসএসসিতে নতুন অভিজ্ঞতা, তবে বেজায় খুশি পরীক্ষার্থীরা

চাঁদপুর প্রতিনিধি    

১৫ নভেম্বর, ২০২১ ০৩:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এসএসসিতে নতুন অভিজ্ঞতা, তবে বেজায় খুশি পরীক্ষার্থীরা

চাঁদপুরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীরা প্রশ্নপত্র হাতে পেয়ে বেজায় খুশি। কারণ, সংক্ষিপ্ত পরীক্ষায় তারা যেমনটি প্রত্যাশা করেছে। শেষ পর্যন্ত তা-ই এসেছে। শুধু তাই নয়, অতীতের রেকর্ড ভেঙে পরীক্ষার্থীদের জন্য এই এক নতুন অভিজ্ঞতা বলেও জানান অভিভাবকরা।

করোনা পরিস্থিতির দীর্ঘ দুই বছর পর শুরু হওয়া এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া চাঁদপুরের বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকরা এমন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে।

এদের মধ্যে চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি হাইস্কুলের ছাত্র ইশতিয়াক আহম্মদ সাফিন বলেন, আমি পরীক্ষা দিতে এসে চিন্তিত ও আতঙ্কিত ছিলাম। কারণ, দেড় ঘণ্টায় কিভাবে পরীক্ষা শেষ করব। কিন্তু যখন হাতে প্রশ্ন পেলাম। তখন দেখলাম ১০০ ভাগই কমন ও সহজ। তাই আমি এমন পরীক্ষায় অংশ নিতে পেরে অনেক আনন্দিত। একই স্কুলের শিক্ষাথী ফার্দুর বাবা মামুনুর রশীদ পাঠান জানান, অভিভাবক হিসেবে আমিও বেশ চিন্তিত ছিলাম। কিন্তু ছেলে যখন হাসিমুখে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে বের হলো। তখন সেই দুঃশ্চিন্তা কেটে গেল।

গণি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের হল সুপার গোফরান হোসেন বলেন, এবারের এসএসসি পরীক্ষা অন্যান্য বারের মতোই ছিল। এতে করে শিক্ষার্থীরা কোনো ধরনের সমস্যায় পরেনি।

এদিকে, চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেন পরীক্ষার্থী অংশ নিতে পারে। তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 

চাঁদপুর জেলা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গিয়াসউদ্দিন পাটোয়ারী বলেন, এ বছর জেলার ৮ উপজেলায় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ৭২টি কেন্দ্রে মোট ৪১ হাজার ১৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।



সাতদিনের সেরা