kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

ভোটের দুদিন পর কেন্দ্রের পাশে মিলল ব্যালটের মুড়ি ও সিল

নোয়াখালী প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০২১ ২৩:৪৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভোটের দুদিন পর কেন্দ্রের পাশে মিলল ব্যালটের মুড়ি ও সিল

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আমান উল্যাপুর ইউনিয়নের একটি ভোটকেন্দ্র থেকে নির্বাচনে ব্যবহৃত ব্যালটের পাঁচটি মুড়ি ও একটি সিল উদ্ধার করেছে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ। শনিবার (১৩ নভেম্বর) বিকালে ২ নম্বর ওয়ার্ডের মহেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের পেছন থেকে এসব মালামাল উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, গত বৃহস্পতিবার ওই ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে কারাবন্দি বিএনপি নেতা ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি মো. বাহারুল আলম সুমন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু নির্বাচনের দুদিন পর ‌ওই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মহেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভবনের পেছনে ব্যালটের মুড়ি ও সিল পড়ে থাকতে দেখে তারা বিষয়টি বেগমগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করলে আজ শনিবার বিকালে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তারা এগুলো জব্দ করে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে সন্দেহ করছেন। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই কেন্দ্রের ফলাফল বাতিলের দাবিতে মিছিল করেছেন।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি জানান, বিদ্যালয়ের দপ্তরি ময়লা ফেলার জন্য বিদ্যালয় ভবনের পেছনে গেলে ব্যবহৃত ব্যালটের পাঁচটি মুড়ি ও সিল পায়। এর মধ্যে তিনটি চেয়ারম্যান, একটি সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ও একটি সাধারণ মেম্বারের ব্যালটের মুড়ি ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ তা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসে সাধারণ ডায়েরি করেছে। তবে তিনি ধারণা করছেন তাড়াহুড়া করে নির্বাচনী সরঞ্জাম আনতে গিয়ে এগুলো পড়ে যেতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রাহাত তানভির চৌধুরী জানান, এটি তিনি জেনেছেন তবে এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থী অভিযোগ দেয়নি। তবে, সংশ্লিষ্ট ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার থানায় জিডি করে মুড়ি ও সিল রিটার্নিং কর্মকর্তাকে বুঝিয়ে দেবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাচন অফিসারকে দিলে এ ব্যাপারে তদন্ত করে নির্বাচন কমিশনের কাছে বিস্তারিত তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানো হবে। ওই কেন্দ্রের ফলাফলের বিষয়ে কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে।

উল্লেখ্য, আমান উল্যাপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. বাহারুল আলম ঘোড়া প্রতীক নিয়ে তিন হাজার ১০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নুরুল হুদা পেয়েছেন দুই হাজার ৮৯১ ভোট। অপরদিকে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরিফুর রহমান মাহমুদ এক হাজার ৭০৫ ভোট পেয়ে চতুর্থ হয়েছেন।



সাতদিনের সেরা