kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

পোকার আক্রমণে দিশেহারা কৃষক!

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০২১ ১৯:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পোকার আক্রমণে দিশেহারা কৃষক!

বরগুনার তালতলীতে আমন চাষিদের ধানক্ষেতে শীষ পোকার আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষকরা। প্রতিকারে বিভিন্ন কীটনাশক ব্যবহার করেও ঠেকানো যাচ্ছে না পোকার আক্রমণ। সবুজ ক্ষেত এখন প্রায় সাদা হয়ে গেছে। পোকার আক্রমণ ঠেকাতে কৃষি বিভাগের তেমন কোনো তৎপরতা নেই বলেও অভিযোগ ভুক্তভোগী কৃষকদের।

রোপা আমন ধানের ক্ষেতে ছড়ি থেকে সবেমাত্র ধানের শীষগুলো বের হতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে ওই বের হওয়া ছড়িতে ধানের শীষে সাদা লম্বা লেদা পোকার মতো এক ধরনের পোকা ওই ধানের শীষগুলো ছিদ্র করে ফেলছে। ফলে ওই ছরিতে আর ধান না হয়ে শুকিয়ে সাদা (চিটা) হয়ে যাচ্ছে। ওই পোকার আক্রমণ থেকে কৃষকের কষ্টের রোপা আমন ধান রক্ষায় বিভিন্ন কীটনাশক ব্যবহার করেও পোকার আক্রমণ ঠেকানো যাচ্ছে না।

সরেজমিনে উপজেলার কবিরাজপাড়া, ঝাড়াখালী, মোয়াপাড়া, নলবুনিয়াসহ বিভিন্ন গ্রামের মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকদের রোপা আমন ধানের ক্ষেতে হঠাৎ করে শীষ পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। পোকার আক্রমণে ক্ষতির মুখে পড়েছেন অধিকাংশ কৃষক। এতে প্রতি বিঘা জমিতে অন্তত পাঁচ থেকে ছয় মণ করে ধান কম পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলার নলবুনিয়া এলাকার কৃষক সফেজ উদ্দিন ও আলতাফ হোসেন জানায়, বীজ রোপণের প্রথম দিকে পাতাগুলো বডা পোকে আক্রমণ করে। রক্ষা পেতে বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ব্যবহার করতে হয়েছে। এরপরে ছড়ায় ধানের শীষ বের হওয়ার পূর্ব মুহূর্তে শিষ পোকায় আক্রমণ শুরু করে। পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ব্যবহার করে কোনো প্রতিকার মিলছে না।

কবিরাজপাড়া এলাকার কৃষক আবুল কাসেম ও সোহরাফ মিয়া বলেন, এ বছর আমন ধানের বীজ খুবই ভালো হয়েছে। কিন্তু সাদা লেদা পোকা ক্ষেতে আক্রমণ করে ধানের শীষ কেটে দিয়েছে। তাই আশানুরূপ ফলন পাওয়া যাবে না বলেও আশঙ্কা করেন ভুক্তভোগী কৃষকরা। পোকার আক্রমণ ঠেকাতে কৃষি বিভাগের তেমন কোনো তৎপরতা নেই বলেও তারা অভিযোগ করেন।

তালতলী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (অতিরিক্ত) সিএম রেজাউল করিম মুঠোফোনে বলেন, জানতে পেরেছি তালতলী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় রোপা আমন ক্ষেতে লেদা পোকার আক্রমণ ব্যাপক হারে বেড়েছে। পোকা দমনে কৃষকদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা