kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

পাটগ্রামে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি   

৯ নভেম্বর, ২০২১ ০৪:৪৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাটগ্রামে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে প্রবীর মন্ডল (৪১) নামের এক ভারতীয় নাগরিক মারা গেছে। মৃত ওই ব্যক্তি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার বরানগর এলাকার মহাদেব মন্ডলের ছেলে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (৮ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পথে তিনি মারা যান। এর আগে রবিবার (৭ নভেম্বর) ঢাকার বাদামতলী কোতোয়ালী এলাকার প্রবীর মন্ডলের বন্ধু জিসান ও এক নারী রাতে একটি নৈশকোচ যোগে ঢাকার মিরপুর এলাকার অপর এক নারীর (২২) সঙ্গে ঢাকা থেকে প্রবীর মন্ডলকে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দিকে পাঠিয়ে দেন।

সোমবার (৮ নভেম্বর) সকালে নৈশকোচটি ওই উপজেলায় পৌঁছায়। এরপর ওই দুই জনের সঙ্গে আগে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পরিচয় হওয়া হাতীবান্ধা উপজেলার নওদাবাস গ্রামের প্রিয়নাথ বর্মণের ছেলে দীপঙ্কর বর্মণ নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা হয়। পরে দীপঙ্করসহ ওই দুই ব্যক্তি দুপুরের দিকে পাটগ্রাম উপজেলায় আসেন। এরপর উপজেলার দহগ্রাম ইউনিয়নের সরকারপাড়া গ্রামের মনিরুল ইসলামের (৩০) নিকট দীপঙ্কর ওই ভারতীয় নাগরিকসহ বাংলাদেশি নারীকে তাঁর নিকট দিয়ে চলে যান। মনিরুল ইসলাম দুইজনকে উপজেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরিয়ে দুপুর ২টায় তাঁর (মনিরুলের) ছোট বোনের বাড়ি পাটগ্রাম উপজেলার রাবার ড্যাম এলাকায় নিয়ে যায়।

বোনের বাড়িতে মনিরুল ও প্রবীর মন্ডল খাওয়া-দাওয়া করে বিশ্রাম নিতে থাকেন। বিকেল সোয়া ৩টার দিকে প্রবীর মন্ডল শারীরিক অসুস্থতা বোধ করছেন বলে জানান। এ সময় তাকে দ্রুত ভ্যানযোগে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক প্রবীর মন্ডলকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রবীর মন্ডলের সঙ্গে পাসপোর্ট রয়েছে। পাসপোর্টের ভিসার মেয়াদ প্রায় দুই বছর আগেই উত্তীর্ণ হয়। এ কারণে ভারতীয় নাগরিক প্রবীর মন্ডল অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করছিলেন।

পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, ‘প্রবীর মন্ডলকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। তবে ওই ব্যক্তি হৃদ (হার্ট) রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন না অন্য কোনো কারণে মারা গেছেন। তা ময়না তদন্ত ছাড়া বলা সম্ভব হবে না।’

এ বিষয়ে পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কিভাবে মারা গেছে তা ময়নাতদন্ত করলে জানা যাবে। থানায় একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে। মঙ্গলবার ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। মৃত প্রবীরের ছোট ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে।’



সাতদিনের সেরা