kalerkantho

শুক্রবার । ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩ ডিসেম্বর ২০২১। ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রধানমন্ত্রী দেশে থাকলে তেলের দাম বৃদ্ধিতে সম্মত হতেন না : রাঙ্গা

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

৬ নভেম্বর, ২০২১ ২০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রী দেশে থাকলে তেলের দাম বৃদ্ধিতে সম্মত হতেন না : রাঙ্গা

প্রধানমন্ত্রী দেশে থাকলে হঠাৎ তেলের দাম বৃদ্ধিতে সম্মত হতেন না বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি ও জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা।

তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে নেই। কেরোসিন ও ডিজেলের দাম একসঙ্গে লিটারে ১৫ টাকা বাড়ানোর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী জানেন কি না জানি না। প্রধানমন্ত্রী দেশে থাকলে, হঠাৎ তেলের দাম বৃদ্ধিতে সম্মত হতেন বলে বিশ্বাস করি না।

আজ শনিবার বিকেলে রংপুর নগরীর মুন্সিপাড়ায় মওলানা কেরামত আলী (রা.) মাজার জিয়ারতের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

সাধারণ মালিকরা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন জানিয়ে রাঙ্গা বলেন, আমরা ধর্মঘট করছি না, আহ্বানও করিনি। এটা সাধারণ মালিকরা করেছেন। কারণ বাংলাদেশ পেট্রোয়িলাম করপোরেশন একতরফাভাবে এক রাতেই ডিজেল-কেরোসিনের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে আলোচনা না করে তেলের দাম একতরফাভাবে বাড়ানো ঠিক হয়নি। একটা শালীনতা তো থাকে, সেটাও বিপিসি (বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন) করেনি। সাধারণ মালিকরা বলেছে, দাম বাড়ার পরে প্রতি কিলোমিটারে ৫২ পয়সা অতিরিক্ত খরচ হবে। যমুনা সেতুর টোল বাড়ানোয় প্রায় এক হাজার টাকা খরচ বাড়বে। এ ছাড়া সড়কে তো চাঁদা আদায় হচ্ছে। মালিক শ্রমিক ও বিভিন্ন সংস্থার লোকজন আছেন, তারাও চাঁদা তোলেন।

রাঙ্গা আরো বলেন, ‘আগের ভাড়ায় গাড়ি চালানো কোনোভাবে সম্ভব নয় বলে সাধারণ মালিকরা বলেছেন। তারপরও আমরা প্রধানমন্ত্রী আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছিলাম। কিন্তু আমরা যদি বেশি চাপ সৃষ্টি করি তাহলে আমাদের নেতৃত্বই থাকবে না।

বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ বলেন, ‘ডিজেলের দাম বৃদ্ধির ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রসহ সব পণ্যের দাম বেড়ে যাবে। সবখানে এর প্রভাব পড়বে। কৃষকরা ডিজেল দিয়ে জমিতে সেচ দেয়, তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। কোনোভাবেই এ সিদ্ধান্ত ঠিক হয়নি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির জেলা সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক ও জাপা নেতা নাজিমুজ্জামানসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।



সাতদিনের সেরা