kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

সাতকানিয়ায় বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে বন্যহাতির মৃত্যু

সাতকানিয়া প্রতিনিধি    

৬ নভেম্বর, ২০২১ ১৩:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাতকানিয়ায় বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে বন্যহাতির মৃত্যু

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে এক বন্যহাতির মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নের হযরত আজগর আলী শাহ মাজারের পশ্চিম পার্শ্বে মইত্তাতলী বিলের ধানক্ষেত রক্ষায় কৃষকদের টানানো বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে আজ শনিবার ভোরে হাতিটির মৃত্যু হয়। 

বনবিভাগ ও এলাকাবাসী জানান, প্রতিবছর ধান পাকার মৌসুমে বন্য হাতির দল লোকালয়ে এসে কৃষকের ধান খেয়ে যায়। ধান কাটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত লোকালয়ের আশপাশে পাহাড়ি এলাকায় থেকে যায় বন্য হাতির দল। এসময় অনেক কৃষকই হাতি ধেতে ধান রক্ষায় ক্ষেতের পাশে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে দেন। 
সোনাকানিয়ার মইত্তাতলী এলাকার বিলেও কিছু কৃষক ধানক্ষেতের পাশে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে রেখেছিলেন। গতকাল ভোরে বন্য হাতির দল ওই এলাকায় ধানক্ষেতে গেলে একটি হাতি বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে মারা যায়। 

সোনাকানিয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ফজল করিম জানান, ধানক্ষেতে মৃত বন্য হাতি পড়ে থাকার বিষয়টি জানার পর বন বিভাগ ও পুলিশকে খবর দিই। ঘটনাস্থলে গিয়ে লোকজনের সাথে কথা বলে জানতে পারি ধান রক্ষায় কৃষকদের দেয়া বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে হাতিটি মারা গেছে। 

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের মাদার্শা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মামুন মিয়া জানান, বন্যহাতির মৃত্যুর বিষয়টি জানার পর আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। হাতির শুঁড়ের নিচের অংশে রক্তক্ষরণ হতে দেখা গেছে। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ধানক্ষেতের পাশে কৃষকদের দেয়া বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে হাতিটির মৃত্যু হয়েছে। শুঁড় দিয়ে রক্তক্ষরণ হওয়ার বিষয়টি দেখে তাই মনে হচ্ছে। তিনি আরো জানান, সাতকানিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তাকে খবর দেয়া হয়েছে। তিনি এসে ময়নাতদন্ত করার পর মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে আরো বেশি নিশ্চিত হতে পারবো। এছাড়া ময়নাতদন্ত শেষে মৃত হাতিটিকে মাটির নিচে পুঁতে ফেলা হবে।  

সাতকানিয়া থানার এএসআই দীপক চন্দ্র ধর জানান, হাতির মৃত্যুর খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। বনবিভাগ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানতে পারলাম বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে হাতির মৃত্যু হয়েছে। মৃত হাতির শুঁড়ে তার দাগ রয়েছে। সেখান থেকে রক্ত ঝরছে। 



সাতদিনের সেরা