kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

রায়পুরায় সংঘর্ষে দুজন নিহতের ঘটনায় অস্ত্র-গুলিসহ আটক ১

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

২৯ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রায়পুরায় সংঘর্ষে দুজন নিহতের ঘটনায় অস্ত্র-গুলিসহ আটক ১

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার দুর্গম চরে বৃহস্পতিবার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলি ও টেঁটাবিদ্ধ হয়ে দুজন নিহত হয়। এ ঘটনার পর আজ শুক্রবার ভোরে উপজেলার পাড়াতলীর কাচারীকান্দি এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ দুটি পাইপগান, তিন রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধারসহ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আটককৃত ব্যক্তির নাম সাব মিয়া (৫৩)। তিনি কাচারীকান্দি গ্রামের বজলু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় আটককৃত ব্যক্তিসহ পাড়াতলী ইউপি সদস্য বড় শাহ আলমের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সংঘর্ষে দুজন নিহতের ঘটনার পর থেকেই শাহ আলম মেম্বার পলাতক বলে জানান তিনি।

পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাচারীকান্দি গ্রামের ছোট শাহ আলমের সঙ্গে বর্তমান ইউপি সদস্য বড় শাহ আলমের বিরোধ চলে আসছিল। এর জেরে গেল রোজার ঈদের পরদিন সংঘর্ষে ছোট শাহ আলমে দুই সমর্থক টেঁটা ও গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারায়। পরে ফের দুই পক্ষের সংঘর্ষে বড় শাহ আলম পক্ষের আফসানা আক্তার নামে এক কিশোরী মারা যায়। এ ঘটনার পর থেকে বড় শাহ আলম ও তার লোকজন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে বড় শাহ আলমের লোকজন এলাকায় ঢোকার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে বড় শাহ আলমের লোকজন দেশি-বিদেশি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ছোট শাহ আলমের সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীতে গুলি ও টেঁটায় উভয় পক্ষের ২০ জন গুরুতর আহত হয়। এর মধ্যে ছোট শাহ আলমের দুই সমর্থক হিরণ মিয়া গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে ও সাদীর মিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।



সাতদিনের সেরা