kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

দেওয়ানগঞ্জে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, পোড়ানো হলো দুটি ড্রেজার

দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি   

২৮ অক্টোবর, ২০২১ ১১:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেওয়ানগঞ্জে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, পোড়ানো হলো দুটি ড্রেজার

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হাতিভাঙ্গা ইউনিয়নের কাঠারবিল বাজারের দক্ষিণ পাশে মহারাণী ব্রিজের নিচে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সময় ২টি ড্রেজার মেশিন আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। গতকাল বুধবার ২৭ অক্টোবর বিকেল ৫টার দিকে এক অভিযানে ড্রেজার দুটি পোড়ানো হয়। দেওয়ানগঞ্জ  সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অহনা জিন্নাতের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ সঙ্গে ছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হাতিভাঙ্গা ইউনিয়নের কাঠারবিল বাজারের দক্ষিণ পাশে মহারাণী ব্রিজের নিচে জিঞ্জিরাম নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছিল একটি চক্র। এ ছাড়া আশপাশের কয়েকটি স্পটে দীর্ঘদিন ধরে চলছে বালু উত্তোলন। ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করায় হুমকির মুখে পড়েছে দেওয়ানগঞ্জ তারাটিয়া সড়ক। এ কারণে উপজেলার যোগাযোগের একমাত্র সড়কটি অনেক জায়গায় ভেঙে গেছে। অস্থায়ী প্রতিরক্ষার ব্যবস্থা করে সড়কটি আপাতত চলাচল উপযোগী করে রাখা হয়েছে। 

এ নিয়ে স্থানীয়দের অভিযোগ, ড্রেজার দিয়ে এই অঞ্চলে বালু উত্তোলন করায় কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সড়কটির অনেক জায়গা নদীগর্ভে চলে গেছে। সড়কের অর্ধেক অংশ দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। কিছুদিন আগেও বর্ষা মৌসুমে সড়কটি ধসে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে কখনো দিনে, কখনো বা রাতে বালু উত্তোলন করা হয়। মাঝে মাঝে অভিযান হলে কয়েক দিন বালুখেকোদের আনাগোনা বন্ধ থাকলেও আবার শুরু হয়। বন্যাপ্রবণ দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা এমনিতেই নদীভাঙনের ঝুঁকিতে রয়েছে। তা ছাড়া এসব অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করায় নদীভাঙন বহু গুণ বেড়ে গেছে। 

দেওয়ানগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অহনা জিন্নাত জানান, আজকের অভিযানে   ২টি ড্রেজার মেশিন ও প্রায় ৫০০ ফিট পাইপ আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, কোথাও যদি কোনোপ্রকার ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করতে দেখেন যার যার স্থান থেকে প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও সুধী সমাজকে সচেতন হতে হবে। তিনি জানান, অভিযান  অব্যাহত থাকবে। কোথাও অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের খবর পেলে সাথে সাথে প্রশাসনকে অবহিত করতে হবে।  



সাতদিনের সেরা