kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

গ্রাহকদের কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও 'নীলিমা সমবায় সমিতি'

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৫ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্রাহকদের কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও 'নীলিমা সমবায় সমিতি'

গ্রাহকদের জমানো কয়েক কোটি টাকা নিয়ে পালিয়েছে নীলিমা বহুমুখী সমবায় সমিতি নামে একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক মোমিন। সোমবার সকালে কেরানীগঞ্জে শত শত গ্রাহক বন্ধ কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, কয়েক বছর পূর্বে কদমতলী খালপাড় এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা মরহুম নুরু মিয়ার ছেলে মো. মোমিন তার তৃতীয় তলা বাড়ির নিচতলার একটি কক্ষে নীলিমা বহুমুখী সমবায় সমিতি নামে প্রতিষ্ঠান খুলে মাসিক ৬০০ টাকা করে সঞ্চয় করলে ২ বছর শেষে অধিক মুনাফার প্রলোভন দেখিয়ে হাজার হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা সংগ্রহ করেন। সেই টাকা আত্মসাৎ করে রবিবার রাতে কার্যালয়ে তালা দিয়ে পালিয়েছে প্রতারক মোমিন। মেয়াদ শেষ হওয়ায় সোমবার সকালে অনেক গ্রাহক পাওনা টাকা নিতে এসে কার্যালয় বন্ধ দেখেন। খবর ছড়িয়ে পড়লে শত শত গ্রাহক এসে ভিড় করেন কার্যালয়ের সামনে। এক পর্যায়ে তারা বিক্ষোভ করতে থাকেন।

রহিমা নামে এক গ্রাহক বলেন, এখানে আমি, মেয়ে, ছেলে, ছেলের বউ, মেয়ে জামাই, নাতীসহ পরিবারের ২৮ জন সদস্য টাকা জমিয়েছি। এর মধ্যে ৫ জনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় সোমবার তাদের টাকা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সকালে এসে দেখি কার্যালয়ে তালা ঝুলছে। আমাদের পরিবারের প্রায় ১০ লাখ টাকা জমা ছিল।

সালেহা বেগম নামে এক নারী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে এখানে টাকা জমিয়েছি। প্রায় ১ লাখ টাকা আমার পাওনা। আজকে টাকা দেওয়ার কথা ছিল। এসে দেখি তালাবন্ধ। পরে জানতে পারি রবিবার গভীররাতে প্রতিষ্ঠানের মালিক আমাদের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে।

জানতে চাইলে উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা রুহুল আমিনের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। তবে উপজেলা সমবায় কার্যালয়ের পরিদর্শক মো. রফিক বলেন, প্রতিষ্ঠানটি উপজেলা সমবায় অফিস থেকে রেজিস্ট্রেশন নিয়েছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ভুক্তভোগী গ্রাহকরা অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, এসব ক্ষেত্রে জনগণকে আরো সচেতন হতে হবে। কোথায় টাকা রাখছি, তার ব্যাকগ্রাউন্ড কি, অনুমোদন আছে কি না? এগুলোা যাচাই করেই টাকা জমা দেওয়া উচিত।



সাতদিনের সেরা