kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

মনোনয়ন পেয়েই অপর প্রার্থীর কর্মীকে হাতুড়িপেটা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

২৫ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মনোনয়ন পেয়েই অপর প্রার্থীর কর্মীকে হাতুড়িপেটা

নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেয়েই অপর নৌকা প্রত্যাশী প্রার্থীর কর্মীকে হাতুড়ি দিয়ে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগে সোমবার সকালে রাজবাড়ীর কালুখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, আগামী ২৮ নভেম্বর রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে উপজেলার শাওরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক চেয়েছেন একাধিক ব্যক্তি। যার মধ্যে রয়েছেন কালুখালী উপজেলার শাওরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম আলী এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার ঠান্ডু।

গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় ইউনিয়নের বিশই শাওরাইল গ্রামের নান্নু মোল্লার ছেলে মাসুদ রানাকে মারপিট করা হয়েছে বলে শাওরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার ঠান্ডু জানান। আহত মাসুদ রানা পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আহত মাসুদ রানা জানান, শহিদুল ইসলাম আলী মনোনয়ন পাওয়ার সংবাদে এলাকায় মিছিল বের করে তার কর্মী-সমর্থকেরা। রাস্তার আমাকে পেয়ে আলীর কর্মী কালার নির্দেশে বিশই শাওরাইল গ্রামের আমিরুল ইসলাম, রঞ্জু, ইনদাসহ বেশ কয়েকজন লোহার রড, হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার ঠান্ডু জানিয়েছেন, আমিও দলের নিকট মনোনয়ন চেয়েছিলাম। আমি পাইনি। তাই বলে কি আমার নেতা-কর্মীদের এভাবে মারধর করতে হবে। এ ঘটনার বিচার চাই আমরা।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলাম আলী জানিয়েছেন, মাসুদ রানার সাথে তার সমর্থক আমিরুল ইসলামের পূর্ববিরোধ রয়েছে। সেই বিরোধের অংশ হিসেবে এ ঘটনা ঘটেছে। গোলাম সরোয়ার ঠান্ডুর সাথে কথা বলে সমস্যার সমাধান করা হবে।

কালুখালী থানার ওসি নাজমুল হাসান জানিয়েছেন, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার ২ আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 



সাতদিনের সেরা