kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

কিশোরের হাতে পাথরখনির 'বৈদ্যুতিক যন্ত্র', দুটো তার এক করতেই ঘটল বিস্ফোরণ!

শেরপুর প্রতিনিধি    

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:২১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কিশোরের হাতে পাথরখনির 'বৈদ্যুতিক যন্ত্র', দুটো তার এক করতেই ঘটল বিস্ফোরণ!

পাথর ভাঙার সময় বোমা বিস্ফোরণে এক কিশোর শ্রমিক আহত হয়েছে। শেরপুরে নালিতাবাড়ীর নাকুগাঁও স্থলবন্দরে গতকাল শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। রাতেই তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা চলছে। আহত কিশোর শ্রমিক রনি মিয়া (১৪) নালিতাবাড়ীর উত্তর কাপাশিয়া গ্রামের চাঁন মিয়া ছেলে। 

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার নানী হরবলার সাথে নাকুগাঁও স্থলবন্দরের একটি পাথরের ডিপোতে পাথর ভাঙার কাজ করছিল কিশোর শ্রমিক রনি। বিকাল ৫টার দিকে পাথরের মাঝে ছোট একটি বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের মতো (ইলেকট্রনিক ডিভাইস) কিছু একটা পায় সে। কৌতুহলবশত সেটি হাতে তুলে নিয়ে বন্দরের কাছে ভাড়া নেওয়া ঘরে ফিরে যায় রনি। পরে সেটিকে নাড়াচাড়ার একপর্যায়ে ওই বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের দু'দিকের দুটি তারকে একসাথে লাগানোর চেষ্টা করলে সাথে সাথে সেটি বিস্ফোরিত হয়। এতে কিশোর রনি অজ্ঞান হয়ে পড়ে। রনির নানী হরবলা বেগম তাকে উদ্ধার করে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। এতে তার জ্ঞান ফেরে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় তাকে। রাতেই তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মামুন জানান, কিশোর রনির বাম হাত ও পায়ে বেশি জখম হয়েছে। এছাড়াও শরীরের বিভিন্ন অংশে ক্ষত হয়েছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রনির নানী পাথর শ্রমিক হরবলা বেগম বলেন, পাথরের মধ্যে কারেন্টের তার লাগাইন্না ছোডো খেলানা জাতীয় কিছু একটা পেয়ে দুই তারের মাথা এক করার সাথে সাথে বিকট শব্দে সেটি বিস্ফোরিত হলে রনি জ্ঞান হারায়। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়া ভর্তি করি। তার অবস্থা এখন উন্নতির দিকে।  

নাকুগাঁও স্থলবন্দর সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, যে ধরনের বোমার বিস্ফোরণ হয়েছে, এ ধরনের বোমা সাধারণত পাথর ভাঙার কাজে পাথর খনিতে ব্যবহার করা হয়। সম্ভবত পাথর ভাঙার বোমাটি কোনো কারণে পাথর খনিতে অবিস্ফোরিত অবস্থায় পড়েছিল। পরবর্তিতে ভুটান থেকে পাথর আমদানির সময় পাথরের সাথে মিশে বোমাটি নাকুগাঁও বন্দরের ডিপোতে চলে আসতে পারে। 

এ বিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ওসি বছির আহমেদ বাদল জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পাথর ভাঙার বোমায়ই নাকুগাঁও স্থলবন্দরে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।



সাতদিনের সেরা