kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

ভবদহের কান্না থৈ থৈ পানি

'আমার বাবার মৃতদেহ সৎকার করতে হচ্ছে নৌকায়...পরিত্রাণ কবে?'

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি   

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ১২:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'আমার বাবার মৃতদেহ সৎকার করতে হচ্ছে নৌকায়...পরিত্রাণ কবে?'

চারদিকে পানি, তাই সৎকার চলছে নৌকায়। ইনসেটে মৃত কালীপদ মন্ডল

পানিবন্দি অবস্থায় চলছে ভবদহ অঞ্চলের মানুষের বাঁচা-মরার সংগ্রাম। চারিদিকে থৈ থৈ পানি। এর মধ্যে কারো মৃত্যু হলে দাফন ও সৎকারে চরম সমস্যার মুখে পড়তে হচ্ছে ভুক্তভোগীদের। এমনই এক করুণ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে যশোরের অভয়নগরের সীমান্তে ভবদহ অঞ্চলের হাটগাছা গ্রামে। পানির মধ্যে নৌকার ওপরে মৃতদেহ রেখে সৎকারের ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোররাতে বার্ধক্যজনিত রোগে মারা যান হাটগাছা গ্রামের কালীপদ মন্ডল (৯২)। বসতঘরসহ চারপাশে পানি থাকায় মৃতদেহ রাখতে হয়েছে নৌকায়। আর সেই নৌকায় রেখেই করতে হয়েছে সৎকার। মৃত কালীপদ মন্ডল হাটগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মানেজিং কমিটির সভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য মনোজ কান্তি মন্ডলের পিতা। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বসতঘরের বারান্দায় পানি। বাড়ির চারপাশে পানিতে সয়লাব। একটি নৌকার মৃতদেহ রাখা হয়েছে। পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে পরিবার ও গ্রামবাসী মৃতদেহে পুষ্প অর্পণ করছেন। পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে সৎকারের সিংহভাগ কাজ চলছে। 

মৃত কালীপদ মন্ডলের ছেলে মনোজ কান্তি মন্ডল কালের কণ্ঠকে জানান, এভাবে বেঁচে থাকার থেকে মৃত্যু ভালো। এ জলাবদ্ধতার থেকে পরিত্রাণ হবে কবে? আমার বাবার মৃতদেহ সৎকার করতে হচ্ছে নৌকায়। জনপ্রতিনিধিরা শুধু আশ্বাসের বাণী দিয়ে চলে যান, কিন্তু পরিত্রাণ হয় না। বর্তমানে গ্রামের অধিকাংশ মানুষ নিজ ঘরবাড়ি ছেড়ে অভয়নগর-মণিরামপুর সড়কে অস্থায়ী ঘর বানিয়ে গবাদী পশু নিয়ে একসঙ্গে বসবাস করছে। এ পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন। 



সাতদিনের সেরা