kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

এক ব্যক্তির মৃত্যু নিয়ে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:২৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এক ব্যক্তির মৃত্যু নিয়ে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা

রংপুরের পীরগাছায় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে আকবর আলী (৪৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। একপক্ষ দাবি করছে ছেলেকে শাসন করার সময় তার হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে। অপরপক্ষ বলছে, চেয়ারম্যানের হুমকি পেয়েই হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে যেকোনো মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের জগজীবন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আকবর আলী ওই এলাকার মৃত আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ জানায়, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে অন্নদানগর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী আমিনুল ইসলাম নির্বাচনী কাজে জগজীবন গ্রামে যান। এ সময় এক মহিলার কাছে ভোট চাওয়ার সময় তার ছেলে মুকুল মিয়া বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলামকে অকথ্য ভাষায় গালি দেন। মুকুল মিয়া ওই ইউনিয়নের বিএনটি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের সমর্থক।

পরে আমিনুল ইসলাম পাশের মমিন বাজারে মুকুল মিয়ার বাবা আকবর আলীর চায়ের দোকানে যান। এ সময় তিনি আকবর আলীকে বলেন, আপনার ছেলে আমাকে ভোট না দিলেও অপমান করতে পারেন না।

এ কথা শুনে আকবর আলী বাড়িতে গিয়ে তার ছেলেকে শাসন করার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন।

আকবর আলীর ছেলে মুকুল মিয়া বলেন, চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম আমাকে ও বাবাকে হুমকি দেয়। আমাকে বলেন, ‘তাকে ভোট না দিয়ে অন্যজনের কাজ করি, আমরা এতো সাহস কই পাই। তার একটা মিটিং আছে সেটা শেষ করে এসে আমাদের বাবা-ছেলের বিচার করবে। এ কথা শোনার পর আমার বাবা স্ট্রোক করে মারা যায়।’

অন্নদানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমি ভোট চাইতে গেলে মুকুল আমার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। পরে শুনতে পারি তাকে শাসন করতে গিয়ে তার বাবা আকবর আলীর হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে।’

চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমান বলেন, মুকুল ও তার বাবা আকবর আলী আমার সমর্থক। তারা আমাকে ভোট দিবে শুনে আমিনুল চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে সকালে তাদের বাড়িতে গিয়ে মুকুলকে ঘুম থেকে তুলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। পরে আকবর আলীকেও একইভাবে গালাগালির পর দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। এ ঘটনায় ভয়ে আকবর আলীর হার্টঅ্যাটাকে মৃত্যু হয়।

পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম বলেন, ছেলের সঙ্গে বাগবিতণ্ডার খবর শুনে আকবর আলী তার ছেলেকে শাসন করার সময় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি। নিহতের পরিবারের অভিযোগ না থাকায় মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।



সাতদিনের সেরা