kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

ফকিরহাটে টানা বর্ষণ, বেহাল সড়কে জনদুর্ভোগ

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি    

২১ অক্টোবর, ২০২১ ১৩:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফকিরহাটে টানা বর্ষণ, বেহাল সড়কে জনদুর্ভোগ

বাগেরহাটের ফকিরহাটে টানা চার দিনের ভারি বর্ষণে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সড়কে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। সড়কে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে বেড়েছে জনদুর্ভোগ। এসব সড়ক চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ায় যাতায়াতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পথচারীসহ যান চালকদের।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, মানসা বাজার শহীদ মিনার থেকে ঘাটভোগ ব্রিজ পর্যন্ত মানসা সাহাপাড়া থেকে পালপাড়া মোড়, কাটাখালী থেকে জলছত্র মোড়, কাঠালতলা থেকে সুকদাড়া মহিষ প্রজনন খামার, শ্যামবাজার বাসস্ট্যান্ড থেকে বেতাগা বাজার, গাবখালী বাজার থেকে লালচন্দ্রপুরের পালের হাট, নলধা স্কুল থেকে খড়রিয়া স্কুল, ফকিরহাট কেন্দ্রীয় কালী মন্দির থেকে আট্টাকী চৌধুরী পাড়া, মৌভোগ সাহেব আলীর মোড় থেকে ডহরমৌভোগ ও আট্টাকা সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে এই বর্ষায় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

মানসা বাজারের ব্যবসায়ী আলমগীর মীর জানান, মানসা বাজার শহীদ মিনার থেকে ঘাটভোগের ব্রিজ পর্যন্ত সড়কটির অবস্থা অনেকদিন ধরেই খারাপ। টানা চার দিনের বৃষ্টিতে এটি এখন পুরোপুরি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। 

মানসা সাহাপাড়ার বাসিন্দা প্রনব সাহা বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও উদাসীনতার কারণে সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে রয়েছে। ভারী বৃষ্টির ফলে পানি আর কাদামাটিতে সড়কের যে অবস্থা হয় তা বলার মতো নয়। পথচারী এবং যান চলাচলে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে। 

এদিকে, আট্টাকার বাসিন্দা বাচ্চু মোড়ল জানান, অস্বাভাবিক জোয়ার ও বৃষ্টি হলেই এই এলাকার একটি সড়ক পানিতে তলিয়ে যায়। ফলে পানিবন্দি অবস্থায় সড়ক দিয়ে যাতায়াতে ব্যাপক সমস্যায় পড়তে হয় স্থানীয়দের।

ইউপি সদস্য মো. শহীদুল ইসলাম জানান, ফকিরহাট কেন্দ্রীয় কালী মন্দির থেকে আট্টাকী চৌধুরী পাড়া পর্যন্ত সড়কটি বেহালদশায় রয়েছে। সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী এলাকাবাসী জানান, অধিকাংশ বাজার ও সড়কের পাশে ড্রেন না থাকায় পানি নামতে পারে না। যে কারণে বৃষ্টি হলেই সড়কে পানি আটকে যাচ্ছে। ফলে চলাচলে খুবই অসুবিধায় পড়তে হয় সবাইকে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী এম এম এ বকর বলেন, গ্রামীণ কয়েকটি ছোট সড়কে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। তবে এসব সড়কের কয়েকটি সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সড়কগুলো সংস্কার ও নতুন করে মেরামত করা হবে। 



সাতদিনের সেরা