kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

আশুলিয়ায় মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলের হাতে বাবা খুন

সাভার সাংবাদদাতা    

১৯ অক্টোবর, ২০২১ ১২:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আশুলিয়ায় মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলের হাতে বাবা খুন

আশুলিয়ায় মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের দা'য়ের কোপে ৭০ বছর বয়সী নুর মোহাম্মদ নামের এক বাবার করুণ মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ছেলে আফাজ উদ্দিনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

আজ মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) ভোর রাতে আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের টেঙ্গুরী কোনাপাড়া ফকিরবাড়ি এলাকায় হারুন গেটে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নুর মোহাম্মদ আশুলিয়ার ওই এলাকার মৃত মোবারক আলী মন্ডলের ছেলে। তার প্রথম পক্ষের স্ত্রীর সন্তান আফাজ উদ্দিন (৪০)।

আফাজ উদ্দিনের ভগ্নিপতি আব্দুল বাতেন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আফাজ উদ্দিন মানসিকভাবে অসুস্থ। ঢাকার ধানমন্ডিতে এক চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু কোনো উন্নতি নেই। কখনো একদম স্বাভাবিক মানুষের মতো, আবার কখনো আবোলতাবাল কথা বলে উলঙ্গ হয়ে ঘুরে বেড়ায়। আফাজ উদ্দিনকে প্রায় ১০ বছর আগে বিয়ে করোনো হয়। তার এক মেয়ে ও এক ছেলে। তার স্ত্রীর সঙ্গে তেমন ঘুমাতো না। তাই আমার শ্বশুর বেশিরভাগ ছেলে আফাজের সঙ্গেই ঘুমাতেন। কিন্তু এমন ঘটনা ঘটাবে আমরা ধারণা করতে পারিনি।  

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানান, ঘাতক আফাজ উদ্দিন মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। ২০০৬ সাল থেকে পরিবার তার চিকিৎসা করে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। আফাজ মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় বাবা নুর মোহাম্মদ তার পাশে থাকতেন। প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল নুর মোহাম্মদ ছেলে আফাজের কক্ষে বাড়ির দ্বিতীয় তলায় ঘুমাতে যায়। কিন্তু ভোর রাতে আফাজ বটি দা দিয়ে গলার পিছনে আঘাত করে বাবার। এসময় গোঙানির শব্দ শুনে পরিবারের অন্য সদস্যরা আফাজের ঘরে গেলে  নুর মোহাম্মদের রক্ষাক্ত দেহ দেখতে পান। তবে এর আগেই  আফাজ ঘর থেকে বেরিয়ে যায়। পরের নুর মোহাম্মদকে  সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আশুলিয়া থানার এস আই কাউছার হামিদ জানান, নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আফাজ উদ্দিন যেহেতু মানসিক প্রতিবন্ধী, তাই তার পরিবার মামলা করতে চাচ্ছে না। তবে উধ্বর্তন অফিসারের পরামর্শ করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



সাতদিনের সেরা