kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

হঠাৎ করে কোটিপতি, দুদকে অভিযোগ

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হঠাৎ করে কোটিপতি, দুদকে অভিযোগ

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের হরিণখোলা গ্রামের বাবুল মিয়া নামে এক ব্যক্তি হঠাৎ করে কোটিপতি হওয়ায় এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। টাকার গরমে বাবুল মিয়া এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে যাচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে স্থানীয় লোকজনদের রয়েছে পাহাড় সমান অভিযোগ। হঠাৎ করে কোটিপতি হওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য স্থানীয় ফজলুর রহমান দুর্নীতি দমন কমিশনে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের হরিণখোলা গ্রামের মৃত হানিফ মিয়ার ছেলে মো. বাবুল মিয়া কয়েক বছর আগেও সাধারণ শ্রমিক ছিলেন। ৭/৮ বছর আগে তিনি ঢাকায় তাহের প্লাস্টিক নামে একটি কারখানা দেন। সেখানে তিনি অবৈধ পণ্য তৈরি করেন বলে অভিযোগ। এ ছাড়া তিনি এলাকার উঠতি বয়সী মেয়েদের তার কম্পানিতে চাকরি দেবেন বলে ঢাকায় নিয়ে অবৈধ কাজ করানোর বিষয়টিও অভিযোগে লেখা হয়।

বাবুল হঠাৎ করে কোটি কোটি টাকার মালিক হওয়ার নৈপথ্যে কি রয়েছে তা তদন্ত করতে হরিণখোলা গ্রামের ফজলুর রহমান বাদী হয়ে গত ৯ অক্টোবর দুর্নীতি দমন কমিশনে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। যার অনুলিপি হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক, হবিগঞ্জ প্রেস ক্লাব, মাধবপুর প্রেস ক্লাবকে দেওয়া হয়।

অপরদিকে হরিণখোলা গ্রামের মৃত মঞ্জুর আলীর ছেলে মো. আইয়ুব আলী গত ১৪ অক্টোবর মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, বাবুল মিয়া হরিণখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাস্তার পানি নিষ্কাশনের একটি কালভার্টের স্থান ভরাট করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেন। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষের চলাচলের পথে বাধা সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে বাবুল মিয়ার সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলো মিথ্যা।



সাতদিনের সেরা