kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

২ মাসে সংসার শেষ পরকীয়া সন্দেহে! স্ত্রী মর্গে, স্বামী আদালতে

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২ মাসে সংসার শেষ পরকীয়া সন্দেহে! স্ত্রী মর্গে, স্বামী আদালতে

গ্রেপ্তার আলিফ হাসান।

পরকীয়ায় জড়িত সন্দেহে বগুড়ার ধুনট উপজেলায় রেহেনা খাতুন (১৮) নামে এক নববধূকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে তার স্বামী আলিফ হাসান (২২)। নিহত রেহেনা খাতুন শেরপুর উপজেলার সুঘাট গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে।

এ ঘটনায় মামলায় আলিফ হাসানকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার বিকেল ৩টার দিকে ধুনট থানা থেকে বগুড়া আদালতে পাঠানো হয়েছে। আলিফ হাসান ধুনট উপজেলার রাঙ্গামাটি গ্রামের মঞ্জুর হকের ছেলে। এর আগে, শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সকালের দিকে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় দুই মাস আগে আলিফ হাসানের সঙ্গে রেহেনা খাতুনের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর রেহেনা খাতুন মোবাইলে কথা বলতেন পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে। বিষয়টি আলিফের নজরে আসলে তিনি নিষেধ করেন। অন্যদিকে আলিফ মাদকাসক্ত থাকতেন। প্রায়ই নেশাগ্রস্ত অবস্থায় স্ত্রীকে নির্যাতন করতেন বলে অভিযোগ।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ঘুমের প্রস্ততি নেয় এই দম্পতি। নিজেদের শয়ন ঘরে ঘুমানোর প্রস্তুতি নেয়। এ সময় স্ত্রীর পরকীয়া প্রেম ও স্বামীর মাদক সেবনের বিষয় নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে ওই রাতেই আলিফ তার স্ত্রীর গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে প্রচার করে শুক্রবার সকালের দিকে মৃতদেহ দাফনের চেষ্টা করে।

সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে রেহেনার মৃতদেহ উদ্ধার ও ঘটনা সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আলিফ হাসানকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শনিবার সকালে নিহত রেহেনার বাবা রেজাউল করিম বাদী হয়ে ধুনট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আলিফ হাসানকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ধুনট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল হক জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন আলিফ হাসান। পরকীয়ায় জড়িত সন্দেহে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে। জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য তাকে বগুড়া আদালতে পাঠানো হয়েছে। 



সাতদিনের সেরা