kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

ক্ষেত রক্ষার নামে কলায় বিষ দিয়ে বানর হত্যার অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১৩ অক্টোবর, ২০২১ ২৩:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্ষেত রক্ষার নামে কলায় বিষ দিয়ে বানর হত্যার অভিযোগ

কক্সবাজারের মহেশখালী দ্বীপে লাউক্ষেত রক্ষার নামে কলায় বিষ দিয়ে অর্ধ শতাধিক বানর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। হত্যার পর ক্ষেতের মালিক মৃত বানরের বেশির ভাগ মাটিতে পুঁতে ফেলেছেন এবং ক্ষেতের মধ্যে খুঁটিতে ঝুলিয়েও রেখেছেন। দ্বীপের বড় মহেশখালী ইউনিয়নের মুদিরছড়া বন বিটের ভারিতিল্যা ঘোনা নামের পাহাড়ের পাদদেশ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, ক্ষেতের মালিকের বিষ প্রয়োগে বিপুলসংখ্যক পাহাড়ী বানর মারা গেলেও বন কর্মীরা আজ বুধবার খুঁজে পেয়েছেন মাত্র ৩টি বানর। বাদবাকি বানর ক্ষেতের মালিক মাটিতে পুঁতে ফেলেছেন। স্থানীয় লোকজন ৪/৫টি মৃত বানরের ছবিও ধারণ করেছেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বড় মহেশখালী ইউনিয়নের দেবেঙ্গা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মোজাফ্ফর মাষ্টারের ছেলে আজমল পাহাড়ী পাদদেশের জমিতে লাউ ও শশার ক্ষেত করেন। পার্শ্ববর্তী পাহাড় থেকে বানর এসে সেই ক্ষেত বিনষ্টের অজুহাতে ক্ষেতের মালিক আজমল কলার সঙ্গে বিষ মিশিয়ে এমন ঘটনা ঘটায় বলে এলাকাবাসী জানান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পাহাড়ি জমিতে কাজ করতে যাওয়ার সময় লাউক্ষেতের পাশে বানরগুলোকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। এলাকাবাসী বিষয়টি দ্বীপের বন বিভাগকে অবহিত করেন।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম উপকূলীয় বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আবদুর রহমান গতরাতে কালের কণ্ঠকে জানান- ‘আমি বর্তমানে মহেশখালীতে অবস্থানকরাকালীন সময়েই বানর হত্যার খবরটি পাই। সরেজমিন গিয়ে মাত্র ৩টি বানর উদ্ধার করতে পেরেছি।’

তিনি জানান, মৃত বানরগুলো পেয়ে প্রাণী সম্পদ বিভাগের চিকিৎসক দিয়ে ময়না তদন্ত করা হয়েছে। মনে হয়েছে ঘটনাটি আরো দুই/তিন দিন আগের। বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বলেন, এ ঘটনা অত্যন্ত নির্মম এবং জঘন্য। দায়ি ব্যক্তিদের শনাক্ত করার পরই তার ঘরে বনকর্মীরা অভিযান চালিয়েছে।

এ ব্যাপারে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও জানান তিনি। প্রসঙ্গত, দ্বীপের মহেশখালী চ্যানেল সংলগ্ন ১৮ হাজার একর পাহাড়ী এলাকায় অনেক বন্যপশু রয়েছে। 



সাতদিনের সেরা