kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চকরিয়ার ১৪৪ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেড় লাখ শিশুতোষ বই বিতরণ

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১২ অক্টোবর, ২০২১ ০৪:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চকরিয়ার ১৪৪ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেড় লাখ শিশুতোষ বই বিতরণ

প্রতিটি বিদ্যালয়কে স্বপ্নের বাতিঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ১৪৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেওয়া হয়েছে দেড় লক্ষাধিক শিশুতোষ গল্পের বই। এসব বই দিয়ে থরে থরে সাজবে প্রতিটি বিদ্যালয়ের লাইব্রেরি। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে রুম টু রিড বাংলাদেশের সার্বিক সহযোগিতায় ‘একটি বিদ্যালয় একটি স্বপ্নের বাতিঘর’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এসব বই বিতরণ করা হয় গতকাল সোমবার সকালে।

উপজেলা পরিষদ হলরুম মোহনা মিলনায়তনে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা অঞ্জন চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে বই বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। উক্ত অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি চৌধুরী। বক্তব্য দেন রুম টু রিড বাংলাদেশের ব্যবস্থাপক মনজুর-ই-এলাহী, উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবু জাফর, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, পালাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হুরে জান্নাত, উত্তর বরইতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক শাহাদাত হোছাইন। অনুষ্ঠান শেষে ১৪৪টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের হাতে প্রতিটি বিদ্যালয়ের জন্য এক হাজার ১০০ পিস করে বই বিতরণ করেন অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে গিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যেই আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক ও প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম হাতে নিয়েছেন। উন্নত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারকে হাতে নিয়ে অনন্য উদ্যোগ নিয়ে ‘একটি বিদ্যালয় একটি স্বপ্নের বাতিঘর’ নামে কার্যক্রম শুরু করেছে।

তিনি বলেন, এসব বই পড়ে শিক্ষার্থীরা জীবন দর্শন, দেশপ্রেম, মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ও চেতনা, স্বাধীন বাংলার অভ্যুদয়ের ইতিহাসের সব স্তর, ভাষা আন্দোলনের ত্যাগ, তাৎপর্যসহ দেশ-বিদেশ তথা সারা বিশ্বের জ্ঞান-বিজ্ঞান, জানা-অজানা সব কিছু প্রাথমিকের এই শিশুদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে গতানুগতিক ধারার শিক্ষা থেকে বের হয়ে জ্ঞানী এক প্রজন্ম গড়ে তোলাই সরকারের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। এরই ধারাবাহিকতায় প্রতিটি বিদ্যালয়ে এসব বই বিতরণ করা হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা