kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বোয়ালমারীতে সেপটিক ট্যাংক থেকে বিধবার বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি   

৮ অক্টোবর, ২০২১ ২০:১৫ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বোয়ালমারীতে সেপটিক ট্যাংক থেকে বিধবার বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় মোসা. নিলুফার ইয়াসমিন (৪৫) নামে এক বিধবা নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টায় বোয়ালমারী পৌরসদরের ৬নম্বর ওয়ার্ডের আঁধারকোঠা গ্রামের ওই গৃহবধূর নিজ বাড়ির সেপটিক ট্যাংক থেকে লাশটি উদ্ধার করে। বৃহস্পতিবার রাতে এ হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে জেলা পুলিশের সিআইডি, পিবিআই, ডিবি ও থানা পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গভীর রাত পর্যন্তু লাশের আলামত সংগ্রহের কাজ করে।

আজ শুক্রবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

থানা ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বোয়ালমারী উপজেলার আধারকোঠা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো. আবুল খায়ের মন্ডলের বিধবা স্ত্রী মোসা. নিলুফার ইয়াসমিন (৪৫) বাড়িতে অধিকাংশ সময় একাই বসবাস করতেন। গত ২০১৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে তার স্বামী মারা যান। তার দুই ছেলে চট্টগ্রামে বিদেশগামী জাহাজে চাকরি করেন। একমাত্র মেয়ের বিয়ে হয়েছে পাশের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বুড়াইচ ইউনিয়নের ফলিয়া গ্রামে। মাঝকান্দি-বোয়ালমারী-ভাটিয়াপাড়া আঞ্চলিক মহাসড়ক থেকে প্রায় ৬০ ফুট দূরত্বে বাড়িটির চারিদিক বসতঘর, রান্নাঘর, বাথরুম দিয়ে আটকানো। এ কারণে বাইরে থেকে শুধুমাত্র সামনের দিক দিয়ে ছাড়া ভেতরে প্রবেশ করার কোনো ব্যবস্থা নেই।

নিহতের মেয়ে প্রিয়াংকা খানম (২৩) জানান, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মায়ের সাথে আমার মোবাইলে শেষ কথা হয়। প্রিয়াংকাদের বাড়ি হয়ে আলফাডাঙ্গা সোনালী ব্যাংকে প্রয়াত স্বামীর মাসিক পেনশনের টাকা তুলতে যাওয়ার কথা ছিল নিলুফার। মায়ের যাওয়ার দেরি দেখে কিছুক্ষণ পর প্রিয়াংকা আবারো মায়ের ফোনে কল দিলে রিং বাজলেও ফোনটি রিসিভ না হওয়ায় আধঘণ্টা পর আবার কল দিলে ফোনটি বন্ধ পান তিনি।

তিনি আরো জানান, মায়ের ফোন বন্ধ পেয়ে বেলা ১২টার দিকে তাদের বাড়ির পাশের গৃহবধূ পান্না রানী রাজবংশীকে ফোন করেন প্রিয়াংকা। তখন প্রিয়াংকার মায়ের বাড়িতে প্রবেশের গেট বাইরে থেকে তালা দেওয়া রয়েছে বলে জানান ওই নারী। পরে প্রিয়াংকা তার মাকে ফোনে না পাওয়ার ঘটনা একই উপজেলার চতুল ইউনিয়নের ধুলপুকুরিয়া গ্রামের নানা বাড়িতে জানান।

নিহত গৃহবধূর ছোট বোন কবিতা ইসলাম (২৭) বলেন, মাগরিবের আযানের একটু আগে আমি ও আমার মা জাহেদা বেগম বিনা বোনের (নিলুফার) খোঁজে ওই বাড়িতে এসে গেটে তালা লাগানো দেখতে পাই। কিন্তু একটি জানালার ফাঁক দিয়ে ভেতরে বিদ্যুতের বাল্ব জ্বলতে দেখে আমার সন্দেহ হয় আমার বোন সাধারণত বাইরে কোথাও গেলে সব সময় বাল্ব বন্ধ করে যেতেন। এ সময় আমি বাড়ির গেট টপকে ভেতরে প্রবেশ করি।

তিনি আরো জানান, ভেতরে ঢুকে আমি বিছানার ওপর আমার বোনের ব্যবহৃত শাড়ি, ভ্যানিটিব্যাগসহ চাবি পাই। চাবি দিয়ে গেটের তালা খুলে মাকে ভেতরে নিয়ে আসি। এরপর আমার বোনের সন্ধানে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করা ও আশপাশে খোঁজাখুঁজি করতে থাকি। এক পর্যায়ে বাড়ির উঠান দিয়ে বস্তা টেনে নেওয়ার দাগ ও আমার বোনের হাতের চুড়ির ভাঙা অংশ দেখতে পেয়ে ওইদিকে হাঁটতে থাকি। কোনো জায়গা না পেয়ে বাড়ির পেছন দিকে সীমানা ঘেষা রিং বসিয়ে তৈরি করা বাথরুমের সেপটিক ট্যাংকের ঢাকনা খুলে মানুষের পায়ের পাতার সামান্য অংশ দেখতে পাই। এ সময় বস্তায় ভরা লাশের বাকি অংশ ট্যাংকের পানিতে ডুবে ছিল। এরপর পুলিশে খবর দেওয়া হলে তারা এসে ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় ট্যাংকের ভেতর থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় আমার বোনের লাশ উদ্ধার করে।

নিহতের মা জাহেদা বেগম বিনা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ওরা আমার কলিজার ধন (নিলুফার) কুপায়ে মারছে। আমার সোনারে মাইরে ফেলাই দিয়ে ঘরে দা, বটি যা ছিল সেগুলো সরাইয়ে ফেলাইছে।

নিহত নিলুফার ইয়াসমিনের আপন মামা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি, জেলা পরিষদ সদস্য আবুল কালাম আজাদের জানান, লাশ দাফনের পর (আজ শুক্রবার বাদ আসর) পরিবারের সদস্যদের সাথে আলোচনা শেষে মামলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে শুক্রবার বিকেলে বোয়ালমারী থানার ওসি মোহাম্মদ নুরুল আলম কালের কণ্ঠকে জানান, হত্যাকাণ্ডের খবর পাওয়ার সাথে সাথেই মধুখালী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কর ও পুলিশের বিভিন্ন বিশেষ ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। আমরা এখন পর্যন্ত এ ঘটনার কোনো নির্ভরযোগ্য রহস্য পাইনি। তবে ঘটনাটি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা