kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মাইকিং হলো মহানগর আসলো এগারসিন্ধু প্রভাতী

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি    

৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:৫৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মাইকিং হলো মহানগর আসলো এগারসিন্ধু প্রভাতী

কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেল স্টেশনে মাইকিং হলো চট্টগ্রামগ্রামী মহানগর প্রভাতী ১নং প্ল্যাটফর্মে ১নম্বর লাইনের আসিতেছে (ট্রেন নং- ৭০৪)। ঠিক ৫মিনিট পর ১নং প্ল্যাটফর্মে ১ নম্বর লাইনে ঢুকলো ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা কিশোরগঞ্জগামী এগার সিন্ধু প্রভাতী (ট্রেন নং- ৭৩৭) ভৈরব থেকে চট্টগ্রামগ্রামী যাত্রীরা মাইকিং শুনে সবাই ট্রেনে উঠে পড়ল। চট্টগ্রামগ্রামী মাহনগর প্রভাতীর যাত্রীরা কিশোরগঞ্জগ্রামী এগারসিন্ধু প্রভাতীতে যার যার কোচ ও আসন খুঁজায় ব্যস্ত। যাত্রীরা সবাই উঠে পড়ল ট্রেনে। 
 
আর পূর্ব থেকে ট্রেনে থাকা ঢাকা থেকে ভৈরব হয়ে কিশোরগঞ্জগ্রামী যাত্রীরা ভৈরব স্টেশনে ৫মিনিট বিরতি দিয়ে যখন ট্রেন চট্টগ্রামগ্রামীর দিকে ভৈরব স্টেশন ছেড়ে ছুটছিল তখন ট্রেনে থাকা যাত্রীরা শুরু করে হট্টগুল চিৎকার। শিশু ও মহিলারা অনেকে চিৎকার করে কাঁদতে শুরু করে। স্টেশনে থাকা অপেক্ষাগ্রামী যাত্রীরা কেউ অনুমানে বুঝছিল আর কেউ বিষয়টি কি হচ্ছিল তা বুঝতে পারছিল না। মূলত এগারসিন্ধু প্রভাতি ট্রেনটি ভৈরবে ৯:০৫ মিনিটে ৩নং লাইনে এসে পৌছাঁর কথা। ভৈরব স্টেশনের ইঞ্জিনটি ঘুরাতে ২০মিনিট লাগে এই ২০মিনিট যাত্রা বিরতি দিয়ে ট্রেনটি আবার কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার কথা। ট্রেনটি সবসময় রেওয়াজ অনুযায়ী ২নং প্ল্যাটফর্মের ৩নম্বর লাইনে আসে এবং ৩নং লাইন থেকে কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। 
 
ভৈরব স্ট্রেশন সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ভৈরব বাজার রেলওয়ে জংশন থেকে মহানগর প্রভাতি ট্রেনটি আখাউড়া, কুমিল্লা, লাকসাম, গুনবর্তী, ফেনী ও চট্টগ্রাম স্ট্রেশনসহ ৬টি স্টেশনে নির্ধারিত অনলাইন মিলিয়ে ৫৬টি আসনে টিকিট বিক্রি করা হয়। এই ৫৬জন যাত্রীসহ ট্রেনে চড়েন বিনা টিকেটসহ আরো প্রায় ২০০জন যাত্রী। সব মিনিয়ে যখন যাত্রীরা ট্রেনে চড়েন আবার কেউ বুঝে ট্রেন থেকে ভৈরব প্ল্যাটফর্মে লাফিয়ে পড়েন। 
 
সবকিছু ভূল বুঝতে পেরে ট্রেনটিকে ভৈরব স্টেশনের ১নং লাইন থেকে ট্রেনে নিয়ে স্টেশনের পূর্ব পার্শ্বের আউটারে ইঞ্জিন ঘুরিয়ে আবার ভৈরব স্টেশনের ২নং প্ল্যাটফর্মে ৩নম্বর লাইনে আনা হয়। তখন চট্টগ্রামগ্রামী যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে ভোগান্তি স্বীকার হয়। তখন এগার সিন্ধু ট্রেনটি কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছাড়ার কথা ৯:২০ মিনিটে কিন্তু তা বিলম্বে ৯:৪০ মিনিটে কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। 
 
ভৈরব রেল স্টেশন থেকে যারা ট্রেনের গন্তব্য ও সময়-সূচি নিয়ে মাইকে ঘোষণার প্রচারণা করেন তাদের নিজস্ব কক্ষে  গেলে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক জৈনিক ব্যক্তি বলেন আমাদেরকে কেবিন থেকে যা নির্দেশনা দেয় তা আমরা প্রচার করি, এর বাইরে দিকে কিছু বলার নেই। 
 
চট্টগ্রামগ্রামী মহানগর প্রভাতির যাত্রী আব্দুর সালাম বলেন মাইকে এনাউন্স/ঘোষনা শুনে আমার নির্ধারিত কোচ পাচ্ছিলাম না। যখন আবার ট্রেনটি ছেড়ে দেয় তখন একটি কামরায় উঠে পড়লাম আজ যেটি হলো তা একধরনের ভূল থেকে হয়েছে। যা ট্রেন পরিচালনার ক্ষেত্রে মারাত্মক ভূল বা ত্র“টি বলে মনে করি। তার সুষ্ঠু তদন্তের দাবী করেন তিনি। 
 
স্টেশনের প্ল্যাটফমে অনেক ব্যবসায়ীরা জানান, এমন ভূল হলে ভৈরব স্টেশনে একদিন বড় দূঘর্টনায় পড়বে ট্রেন। যা আর রেহায় থাকবে না কারো। কেন এমন হলো তা উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের আমলে নেওয়ার আহ্বান জানান। 
 
কর্তব্যরত কেবিন মাস্টার মেহরুননেছা কালের কণ্ঠকে বলেন স্টেশনের সুবিধার্থে এবং যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ট্রেন ৩নম্বর লাইনের ট্রেন ১নং নম্বরে লাইনে নিলে কোন সমস্যা নেই। আর যেটি হয়েছে স্বাভাবিক পরিচালনা থেকে হয়েছে বলে দাবী করেন।  ভৈরব বাজার স্টেশন মাস্টার মো: নুর-নবী বলেন, সকালে আমি দায়িত্বে ছিলাম না। তাই এই সমপর্কে আমার কিছু বলার নেই।


সাতদিনের সেরা