kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রামে ই-অরেঞ্জের মালিকসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৬ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে ই-অরেঞ্জের মালিকসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রতারণার অভিযোগে বহুল আলোচিত ই-অরেঞ্জের মালিকসহ সাতজনের বিরুদ্ধে এবার মামলা দায়ের করা হয়েছে চট্টগ্রামের আদালতে। প্রায় সাড়ে ১১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ই-অরেঞ্জ মালিক সোনিয়া মেহজাবিনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম হোসেন মোহাম্মদ রেজার আদালতে মামলাটি দায়ের করে প্রতারণার শিকার নুরুল আবছার পারভেজ নামের এক ব্যক্তি।

বুধবার দুপুরে মামলাটি দায়ের করার পর আদালত এই বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দিয়েছেন।

মামলার আসামিরা হলেন- ইঅরেঞ্জের মালিক সোনিয়া মেহজাবিন, তাঁর স্বামী মাসুকুর রহমান, ভাই সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা শেখ সোহেল রানা, ই-অরেঞ্জের কর্মকর্তা আমানুল্লাহ, বীথি আক্তার, জায়েদুল ফিরোজ ও নাজমুল হাসান রাসেল।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট গোলাম মাওলা মুরাদ কালের কণ্ঠকে বলেন, প্রতারণার শিকার হয়ে বাদী যে আর্জি আদালতে দাখিল করেছেন, সেটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করে আদালত পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়, চলতি বছরের ২৭ মে পর থেকে ই-অরেঞ্জ পণ্য সরবরাহের নাম করে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা গ্রহণ করলেও পণ্য সরবরাহ করেনি। এরই মধ্যে ই-অরেঞ্জ কর্তৃপক্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রচার করে গ্রাহকদের জানায়, তারা পণ্য সরবরাহ করবে। কিন্তু এখনো পণ্য সরবরাহ করেনি। এরই মধ্যে বাদী জেনেছেন, ই-অরেঞ্জ কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রায় এক হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে। সেই টাকার মধ্যে চট্টগ্রামে বাদী নুরুল আবছার পারভেজ, তার পরিচিত গ্রাহক মোর্শেদ সিকদার ও মাহমুদুল হাসান খান নামের তিনজনের প্রায় ১১ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে।

অ্যাডভোকেট গোলাম মাওলা মুরাদ আরো বলেন, ই-অরেঞ্জ কর্তৃপক্ষ সারা দেশে গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। চট্টগ্রামে গ্রাহকদের টাকা ফেরত চেয়ে আদালতে মামলা হয়েছে। 



সাতদিনের সেরা