kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

হিলির সীমান্তবর্তী তিন ইউনিয়নে নৌকা পেতে মরিয়া ১৭ প্রার্থী

হিলি প্রতিনিধি   

৬ অক্টোবর, ২০২১ ১২:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হিলির সীমান্তবর্তী তিন ইউনিয়নে নৌকা পেতে মরিয়া ১৭ প্রার্থী

হিলি সীমান্তবর্তী হাকিমপুর উপজেলার তিনটি (আলীহাট, খট্টামাধবপাড়া ও বোয়ালদাড়) ইউনিয়নের দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে নৌকা পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্থানীয় বিভিন্ন স্তরের ১৭ নেতাকর্মী। তফসিল ঘোষণার পর থেকে ইউনিয়ন তিনটির হাটবাজার ও চা-স্টলগুলোতে 'কে পাবে নৌকা প্রতীক' নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ইতিমধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে, যেখানে দেখা গেছে নতুন-পুরাতন মিলে কয়েক ডজন প্রার্থীর মুখ। মনোনয়নপ্রত্যাশী সকলের তালিকা পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রে বলে জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইমদাদুল হক চৌধুরী। 

তিন ইউনিয়নের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন ১ নং খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের ৫ জন নৌকার জন্য লড়াই করছেন। এদের মধ্যে হলো নৌকা নিয়ে লড়াই করে বিজয়ী হওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি কাওছার রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক, সহ-সভাপতি আজিজার রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য হরুন উর রশিদ। 

২ নং বোয়ালদাড় ইউনিয়নেও ৫ জন নৌকা পাবার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এদের মধ্যে গেলো নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়াই করা প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সদরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রাসেল আলী খান, আওয়ামী লীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম (ডাবলু) ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হান্নান।

এদিকে, ৩ নং আলিহাট ইউনিয়নের চিত্র ব্যতিক্রম। নৌকার মনোনয়নপ্রত্যাশী এই ইউনিয়নে ৭ জন। এদের মধ্যে রয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও বর্তমান চেয়ারম্যান গোলাম রসুল (বাবু), আওয়ামী লীগ নেতা সাজ্জাদুজামান (সাহেব), উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শ্রী সুমন মন্ডল ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম (রভি)।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাকিমপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জামিল হোসেন চলন্ত বলেন, দ্বিতীয় ধাপে আমাদের হাকিমপুর উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর ভোট অনুষ্ঠিত হবে। দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আমরা কেন্দ্রে বেশ কিছু নাম পাঠিয়েছি। আশা করছি যারা দলের সাথে অনেকদিন ধরে জড়িত আছে ত্যাগ স্বীকার করেছে তারা দলের কাছে মূল্যায়ন পাবে। আমরা ইতিমধ্যে তিনটি ইউনিয়নের ১৭ জনের নাম পাঠিয়েছি।

দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি বলেন, আমার নির্বাচনী আসনে টাকার বিনিময়ে কোনো টিকিট পাবার সুযোগ নেই। যারা দলের জন্য শ্রম দেন, বিভিন্ন সময়ে যারা দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেন তারাই নৌকা পাবার যোগ্য। আমিও হাকিমপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলাম। সেখান থেকে আগ্রহী ১৭ প্রার্থী নৌকা মার্কার জন্য আবেদন করেছন। আমরা তাদের তালিকা কেন্দ্রে পাঠিয়েছি।

এদিকে ১৭ প্রাথীই নৌকার টিকিট নিতে ঢাকাতে অবস্থান করছেন বলে বিভিন্ন সূত্র জানায়।



সাতদিনের সেরা