kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩ কার্তিক ১৪২৮। ১৯ অক্টোবর ২০২১। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অপচিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু; স্বাস্থ্যসচিবসহ ৬ জনকে ‘লিগ্যাল নোটিশ

‌নিজস্ব প্রতিবেদক, ব‌রিশাল    

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৬:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অপচিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু; স্বাস্থ্যসচিবসহ ৬ জনকে ‘লিগ্যাল নোটিশ

বরগুনায় অপচিকিৎসার শিকার হয়ে ৯ মাসের শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় ভুয়া চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ ছয়জনকে উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের বরিশাল বিভাগীয় পরিচালক, বরগুনার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সিভিল সার্জনের কাছে এ নোটিশ পাঠানো হয়। 

সোমবার ‘নাগরিক অধিকার’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের পক্ষে আইনজীবী হাসান তারিক পলাশ ওই ছয়জনকে ‘লিগ্যাল নোটিশ’ পাঠান। নোটিশে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সমগ্র বরগুনা জেলায় তদন্ত করে অনিবন্ধিত চিকিৎসকদের খুঁজে বের করা, তাদের তালিকা তৈরি করে সিভিল সার্জন অফিসের নোটিশ বোর্ডে টানিয়ে দেওয়া এবং তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করে আদালতে সোপর্দ করা- এই তিনটি বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

লিগ্যাল নোটিশে উল্লেখ করা হয়, গত ১৯ সেপ্টেম্বর বরগুনা ফার্মেসি পট্টিতে অবস্থিত চাইল্ড কেয়ার সেন্টার নামের একটি চিকিৎসাপ্রতিষ্ঠানের কথিত চিকিৎসক মাসুম বিল্লাহ নামের জনৈক ব্যক্তির অপচিকিৎসার শিকার হয়ে ইয়ামিন নামের ৯ মাস বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়। ২৪ সেপ্টেম্বর এ নিয়ে দেশের প্রথম সারির বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়। কিন্তু আইন ভঙ্গ করে বরগুনায় চিকিৎসক পরিচয় ব্যবহার করে ভুয়া চিকিৎসকরা চিকিৎসা কার্যক্রম চালিয়ে আসছে, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ ছাড়া গত ৬ সেপ্টেম্বর আইনজীবী হাসান তারিক পটুয়াখালীর চক্ষু চিকিৎসক খালেদ মতিনকে চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ এনে মহসিনা ইয়াসমিন সুমা নামের এক নারীর পক্ষে আইনগত নোটিশ পাঠান।

এ বিষয়ে নাগরিক অধিকারের পক্ষে লিগ্যাল নোটিশ প্রেরক বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হাসান তারিক (পলাশ) বলেন, স্বাস্থ্যসেবার অধিকার আমাদের অন্যতম সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার। এদের কারণে নাগরিকরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তেমনি অপচিকিৎসার শিকার হয়ে প্রাণহানির মতো ঘটনা ঘটছে। আমাদের দাবি, সব অনিবন্ধিত চিকিৎসকদের চিকিৎসার নামে ব্যবসা বন্ধ করতে সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এ বিষয়ে বরগুনার সিভিল সার্জন ডা. মারিয়া হাসান বলেন, সম্প্রতি শিশুর মৃত্যুর ঘটনার পর আমরা ভুয়া চিকিৎসকদের তালিকা তৈরি করে জেলা প্রশাসনের কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা নিচ্ছি। এ ছাড়া আমরা এদের ব্যাপারে বিধিমোতাবেক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, ভুয়া চিকিৎসকদের ব্যাপারে আমরা নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছি। স্বাস্থ্য বিভাগের সহায়তায় তাদের সঙ্গে নিয়ে আমরা দ্রুত ভুয়া চিকিৎসক শনাক্ত ও তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।



সাতদিনের সেরা