kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

তালায় স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, থানায় মামলা

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি    

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১২:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তালায় স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, থানায় মামলা

সাতক্ষীরার তালায় অপহরণের পর এক স্কুলছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার ১০ম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর বাড়ি উপজেলার ইসলামকাটী ইউনিয়নে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ধর্ষকের পরিবারের সদস্যরা দফায় দফায় ভিকটিম ও তার পরিবারকে হুমকি প্রদান করছেন বলেও অভিযোগ ওঠে। এছাড়া এক রাজনৈতিক নেতাও ধর্ষকের পরিবারকে বাঁচাতে ব্যাপক তৎপর বলেও জানান অনেকে। এ ঘটনায় ধর্ষকসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে তালা থানায় একটি মামলা হয়েছে। 

জানা যায়, উপজেলার ইসলামকাটী ইউনিয়নের সুজনশাহা গ্রামের মশিয়ার রহমান শেখের বখাটে ছেলে জাহিন শেখ (২০) ওই স্কুলছাত্রীকে প্রায়ই উত্যক্ত করত। বিভিন্ন সময়ে সে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এ বিষয়ে মেয়েটি তার বাবাকে জানালে তিনি জাহিনের পিতা ও মাতাকে অবহিত করেন। কিন্তু তারা ঘটনার প্রতিকার না করে উল্টো হুমকি প্রদানসহ অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। পিতা-মাতার এমন উস্কানি পেয়ে আরো সাহসী হয়ে ওঠে লম্পট জাহিন। গত ২১ সেপ্টেম্বর রাতে সে তার ৪/৫ জন বন্ধুকে নিয়ে কৌশলে মেয়েটিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরদিন সকাল ১১টার দিকে মেয়েটি একা বাড়িতে ফিরে আসে এবং মায়ের কাছে জানায়, তাকে ধর্ষণ ও মারধর করা হয়েছে। 

ভিকটিম স্কুলছাত্রী জানায়, ওইদিন রাতে জাহিন ও তার ৪/৫ জন বন্ধু তাকে অপহরণ করে ডুমুরিয়া উপজেলার আঠারোমাইল নামক এলাকায় তার (জাহিনের) এক খালার বাড়িতে নিয়ে যায়। খালার বাড়ির লোকদের সহযোগিতায় জাহিন রাতে তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনা মেয়েটি সবাইকে জানিয়ে দেবে বললে জাহিন তাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বস্ত করে। একপর্যায়ে জাহিনের খালা ঘোনা গ্রামের জমির উদ্দীন শেখের মেয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা তমা খাতুন ও জাহিনের পিতা-মাতা এসে মেয়েটিকে মারধর করেন এবং বিষয়টি জানাজানি হলে তাকে মেরে ফেরার হুমকি দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

ওই স্কুলছাত্রীর প্রতিবেশী এক দাদা জানান, ধর্ষণ ও মারধরের ঘটনা জানার পর থানায় মামলা করার উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু ধর্ষকের পরিবারসহ এলাকার এক রাজনৈতিক নেতা এবং প্রভাবশালী মহল নানান হুমকি দিতে থাকে। এমনকি ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে নানা ছলচাতুরি করতে থাকেন তারা। পরবর্তীতে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ভুক্তভোগীর পিতা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ধর্ষক জাহিন শেখ, তার পিতা মশিয়ার রহমান, মা ইয়াসমিন খাতুন ও খালা তমা খাতুনসহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে।

এ বিষয়ে তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল বলেন, স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, মারধর ও হুমকি প্রদানের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে, মামলা নং- ১১/২১। আসামিরা সব পলাতক থাকায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হযনি। গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। খুব দ্রুত মামলার সকল আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে। 

এছাড়া শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সাতক্ষীরা থেকে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা করানোসহ বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।



সাতদিনের সেরা