kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ডাক্তার বললেন 'মৃত', দাফনের সময় নড়ে উঠল শিশুটি! অতঃপর...

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৮:২৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ডাক্তার বললেন 'মৃত', দাফনের সময় নড়ে উঠল শিশুটি! অতঃপর...

প্রতীকী ছবি।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পানিতে পড়ে যাওয়া জীবিত শিশুকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর বাড়িতে নিয়ে আসা হয় দেহ। এমন সময় শিশুটি নড়েচড়ে উঠলে আবারো নেওয়া হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। পরে মৌলভীবাজার হোপ প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এমন অভিযোগ করেছে মৃত শিশুটির পরিবার।

বুধবার দুপুর ১২টায় কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিশু আশরাফুল ইসলাম (২) উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে।

এদিকে, এমন ঘটনায় কমলগঞ্জ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক-সেবিকাদের ওপর শিশুটির স্বজন ও এলাকাবাসী চড়াও হয়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

জানা যায়, সকাল সাড়ে ৯টায় আশরাফুল বাড়ির পাশের পুকুরের পানিতে পড়ে যায়। সেখান থেকে উদ্ধার তাকে করে তকে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কনিকা রানী সিনহা শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে মৃত ঘোষণার পর পরিবারের সদস্যরা শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে দাফন-কাপন সম্পন্ন করার প্রস্তুতি নেয়। এ সময় হঠাৎ নড়াচড়া করতে দেখা যায় শিশুটিকে। পুনরায় পরিবার ও এলাকাবাসী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তাকে চিকিৎসা না দিয়ে মৌলভীবাজার হাসপাতালে  নিয়ে যেতে বললে উপস্থিত স্বজন ও এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে উঠে। পরে কমলগঞ্জ থানায় খবর দিলে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

শিশুটি বাবা মাসুক মিয়া অভিযোগ করে বলেন, 'আমার ছেলে পানিতে পড়লে হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে মহিলা ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেছেন। কিন্তু বাড়িতে নিয়ে আসার পর সে নড়াচড়া শুরু করলে জীবিত আছে দেখে আবারো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। তখন হাসপাতালে ডাক্তার শিশুটিকে ভর্তি না করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়ার জন্য বলে। কিন্তু শিশুটিকে মৌলভীবাজার জেলা সদর হাসপাতালে যাওয়ার আগেই সে মারা যায়।'

এ ব্যাপারে ডা. কনিকা বাণী সিনহার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া বলেন, আমি সিলেটে একটি সভায় আছি। বিষয়টি পুরো জেনে জানবো।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশেকুল হক বলেন, এ রকম হলে বিষয়টি দুঃখজনক। শিশুর মৃত্যুর বিষয়টি জেলা প্রশাসককে মহোদয়কে অবগত করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা