kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

পীরগাছায় বৃদ্ধাকে হত্যার রহস্য উন্মোচন

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১১:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পীরগাছায় বৃদ্ধাকে হত্যার রহস্য উন্মোচন

সন্তানেরা চাকরির সুবাদে ঢাকায় থাকায় গ্রামে নিজ বাড়িতে একাই থাকতেন বৃদ্ধা রাবেয়া বেগম (৭০)। প্রতিদিনের মতো রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন তিনি। গভীর রাতে চুরির উদ্দেশ্যে শয়নকক্ষে প্রবেশ করেন প্রতিবেশী চার যুবক। একপর্যায়ে শব্দ পেয়ে ঘুম ভেঙে যায় বৃদ্ধা রাবেয়া বেগমের। তিনি ভয় পেয়ে চিৎকার করে বলতে শুরু করেন, তোমাদের তো আমি চিনি। তোমরা এখানে কি চাও। ঠিক তখনই ওই যুবকরা রাবেয়া বেগমকে ছুরিকাঘাত করেন। পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে তাকে গলা কেটে হত্যার পর বাহির থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে পালিয়ে যান তারা।

গত ১৩ আগস্ট দিবাগত গভীর রাতে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের রাধাকৃষ্ণ গ্রামে এক বাড়িতে চুরি করতে গেলে তাদের চিনে ফেলায় এভাবেই এক বৃদ্ধাকে হত্যা করা হয়। নিহত রাবেয়া বেগম ওই গ্রামের মৃত রহিম উদ্দিনের স্ত্রী। এ ঘটনার প্রায় এক মাস পর প্রযুক্তির সহায়তায় হত্যা রহস্য উন্মোচন করেছে পীরগাছা থানা পুলিশ। হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে চার যুবককে।

গতকাল সোমবার বিকেলে গ্রেপ্তারকৃতদের রংপুর আমলী আদালতে তোলা হলে তাদের মধ্যে দুজন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার অনন্দনগর ইউনিয়নের মুন্সি পাড়া গ্রামের রমজান আলীর ছেলে রুবেল মিয়া দুখু (২০), আশাদুল হকের ছেলে দুলাল মিয়া (১৯), মীর মাজেদুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান রাঙ্গা ও জুলহাস মিয়ার ছেলে শিমুল শেখ (২৫)।

এর আগে গত রবিবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে দুখু মিয়া ও দুলাল মিয়া জানান, তাঁরা বৃদ্ধা রাবেয়া বেগমের প্রতিবেশী ছিলেন। ঘটনার দিন রাতে বাড়িতে একা থাকা রাবেয়া বেগমের বাড়িতে চুরি করতে যান। এসময় ঘরে প্রবেশ করে চুরি করার একপর্যায়ে বৃদ্ধা রাবেয়া বেগম জেগে উঠে তাদেরকে চিনে ফেলেন। বিষয়টি যাতে প্রকাশ না হয়, এজন্য তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে তারা পালিয়ে যান।

জবানবন্দি শেষে বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম জানান, প্রায় এক মাস অপেক্ষার পর হত্যা রহস্য উদঘাটনে সক্ষম হয় পীরগাছা থানা পুলিশ। চুরি করতে গেলে চিনে ফেলায় বৃদ্ধাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে তোলা হলে তাদের মধ্যে দুখু মিয়া ও দুলাল মিয়া ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ আগস্ট বিকেলে উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের রাধাকৃষ্ণ গ্রাম থেকে মৃত রহিম উদ্দিনের স্ত্রী রাবেয়া বেগমের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। রাবেয়া বেগমের সন্তানেরা ঢাকায় চাকরি করায় গ্রামের বাড়িতে একাই থাকতেন তিনি। ওইদিন দুপুর পর্যন্ত বৃদ্ধা রাবেয়া বেগমের সাড়াশব্দ না পেয়ে স্থানীয়রা তার খোঁজ করতে থাকেন। একপর্যায়ে বৃদ্ধা রাবেয়া বেগমের শয়নঘরে তালা লাগানো দরজার ফাঁক দিয়ে মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে শয়নকক্ষ থেকে রাবেয়া বেগমের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।



সাতদিনের সেরা