kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিদ্যুতায়নে পাল্টে গেছে গফরগাঁওয়ের চরাঞ্চল

নজরুল ইসলাম, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ)   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিদ্যুতায়নে পাল্টে গেছে গফরগাঁওয়ের চরাঞ্চল

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেলের উদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় পল্লী বিদ্যুতের আলোয় উদ্ভাসিত চরাঞ্চল। ব্রহ্মপুত্র নদ দ্বারা বিচ্ছিন্ন, তিনটি উপজেলার সীমানা ঘেঁষা বিশাল আয়তনের চরআলগী ইউনিয়নে প্রায় ৫০ হাজার মানুষের বসবাস। যোগাযোগ অবকাঠামোর অপ্রতুলতায় অনেকটাই পিছিয়ে ছিল এই জনপদ। জীবনযাত্রার মানও ছিল নিম্ন। শুকনো মৌসুমে ধুলি-বালি ও বর্ষায় কর্দমাক্ত কাঁচা সড়ক আর আলপথই ছিল চরাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতের ভরসা। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত একটি সেতু ও শতভাগ বিদ্যুতায়নে পাল্টে গেছে দুঃস্বপ্নের সেই চিত্র। এখন গড়ে উঠছে দালান-কোঠা, ঘরে ফ্রিজ, রঙিন টেলিভিশন আর বিদ্যুতের নিয়ন আলোয় উদ্ভাসিত।

গফরগাঁও উপজেলার চরআলগী ইউনিয়ন সবদিক থেকেই ছিল অনগ্রসর জনপদ। পার্শ্ববর্তী ত্রিশাল, নান্দাইল, হোসেনপুরসহ তিনটি উপজেলার সীমানা ঘেঁষা চরআলগী ইউনিয় চারটি মৌজায় প্রায় ২১ কিলোমিটার দীর্ঘ চর এলাকা নিয়ে অবস্থিত। ব্রহ্মপুত্র নদ দ্বারা বিচ্ছিন্ন চরআলগীতে কোনো পাকা সড়ক ও বিদ্যুৎ সংযোগ ছিল না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত প্রায় ৮০কোটি টাকা ব্যয়ে ৮১০ মিটার দৈর্ঘের ব্রহ্মপুত্র সেতু নির্মাণ হওয়ার পর থেকেই চরআলগীর চিত্র পাল্টাতে শুরু করে। সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল ২১ কিলোমিটারের একটি পাকা সড়কসহ কয়েকটি পাকা সড়ক নির্মাণ করে চরআলগী ইউনিয়নকে পল্লী বিদ্যুতের আওতায় আনেন। এতে এক প্রান্ত থেকে চরাঞ্চলের অপর প্রান্তে যাতায়াত করা যাচ্ছে। ফলে চরাঞ্চলের উৎপাদিত কৃষি পণ্য দ্রুত ও সহজে বাজারজাত করতে পারছেন কৃষকরা।

এ ছাড়া ব্রহ্মপুত্র সেতু নির্মাণ হওয়ায় পাশের নান্দাইল, ইশ্বরগঞ্জ, ত্রিশালের একাংশ ও হোসেনপুর উপজেলার একাংশের ট্রেনযাত্রীরা চরআলগীর উপর দিয়ে গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে যাতায়াত করেন। চরআলগীর সব গ্রাম ও পাড়ায় পল্লী বিদ্যুতের প্রায় ২২৫ কি.মি. সঞ্চালক লাইন স্থাপন করে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগ হয়েছে।

চরআলগী নয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা হেমায়েত উদ্দিন লিটন ওরফে লিটন ভেন্ডার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত ব্রহ্মপুত্র সেতু আর সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেলের প্রচেষ্টায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন হওয়ায় চরআলগীর মানুষ এখন শহরের সুবিধা ভোগ করছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাছুদুজ্জামান বলেন, আমাদের প্রিয় নেতা সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেলের উদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় চরআলগীর ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌঁছে গেছে।

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যু সমিতি-২ এর আওতাধিন গফরগাঁও জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মীর্জা মো. রুহুল্লাহ বলেন, চরআলগী ইউনিয়নে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা দেওয়ার জন্য সেখানে একটি অফিস করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সমিতি বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ ও এলাকা পরিচালক এম সালাহ উদ্দিন পলাশ বলেন, গফরগাঁও উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষকে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা দেওয়ার জন্য চরআলগী ইউনিয়নে জন্য একটি সাব-স্টেশন স্থাপনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।



সাতদিনের সেরা