kalerkantho

বুধবার । ৪ কার্তিক ১৪২৮। ২০ অক্টোবর ২০২১। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স : এক যুগ ধরে বন্ধ অস্ত্রোপচার কক্ষ

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি    

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৪:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স : এক যুগ ধরে বন্ধ অস্ত্রোপচার কক্ষ

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যাপ্তসংখ্যক চিকিৎসক নেই। মাত্র চারজন চিকিৎসক দিয়ে চলছে রোগীদের চিকিৎসাসেবা। এক যুগ ধরে বন্ধ অস্ত্রোপচারকক্ষ। ফলে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন চুনারুঘাটবাসী।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ৫০ শয্যার এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মাত্র চারজন মেডিক্যাল অফিসার ও একজন ডেন্টাল সার্জন রয়েছেন। ২০০৯ সালের জুন মাসে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ থেকে ৫০ শয্যার কার্যক্রম চালুর জন্য প্রশাসনিক অনুমোদন পায়। এর পর ২০১৬ সাল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ৫০ শয্যার কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু দেওয়া হয়নি ৫০ শয্যার জন্য প্রয়োজনীয় জনবল। সেখানে ৩১ শয্যার জনবল থাকায় রয়ে গেছে সংকট। এসব সংকট নিয়ে কর্তৃপক্ষ জোড়াতালি দিয়ে কোনোমতে মানুষকে সেবা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

অপরদিকে, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) পদে জনবল না থাকায় হাসপাতালের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে আসা রোগীদের যেতে হচ্ছে বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। এতে গরিব রোগীরা পড়ছেন বিপাকে। 

এখানে, জুনিয়র কনসালট্যান্ট (শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (মেডিসিন), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (গাইনি), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (সার্জারি), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (অ্যানেসথেশিয়া) পদগুলো দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। এসব পদে চিকিৎসক পদায়ন হলেও কেউ হাসপাতালে এসে বেশিদিন থাকেন না। নানা কারণ দেখিয়ে তারা বদলি হয়ে চলে যান অন্যত্র। ফলে এসব পদ বছরের পর বছর ধরে শূন্য পড়ে আছে। এ কারণে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে চালু করা যাচ্ছে না অপারেশন থিয়েটার। এ ছাড়া মেডিক্যাল অফিসারের ৩টি পদের মধ্যে ১টি শূন্য, মেডিক্যাল অফিসার (আয়ুর্বেদিক-হোমিওপ্যাথিক) ১টি পদের ১টি-ই শূন্য, মেডিক্যাল টেকনলজিস্ট (ল্যাব) ২টি পদের মধ্যে ২টি শূন্য, ফার্মাসিস্ট ২টি পদের ২টি শূন্য, স্ব্যস্থ্য পরিদর্শক ৩টি পদের ৩টি শূন্য, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শকের ১১টি পদের মধ্যে ৪টি পদ শূন্য, স্বাস্থ্য সহকারী ৫৫ জনের মধ্যে ১৩টি পদ শূন্য। এ অবস্থায় কোনোরকমে চলছে চুনারুঘাটের চার লাখ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা।

এ ছাড়া জরুরি বিভাগে প্রতিদিন ৪০-৫০ জন রোগী সেবা নিয়ে থাকেন। ফলে এত কমসংখ্যক চিকিৎসক তাদের সেবা দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন।

চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোজাম্মেল হোসেন বলেন, হাসপাতালে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক না থাকায় রোগীদের ঠিকমতো সেবা দেওয়া যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা