kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৮। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২০ সফর ১৪৪৩

পানিতে ভাসছে মুক্তিযোদ্ধার 'আশ্রয়'! জোটেনি সরকারি ঘর

কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৭:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পানিতে ভাসছে মুক্তিযোদ্ধার 'আশ্রয়'! জোটেনি সরকারি ঘর

বিভিন্ন জায়গায় ধরনা দিয়েও বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া মোল্যার ভাগ্যে জোটেনি একটি সরকারি ঘর। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় সরকারি ইটভাটায় স্থান পেয়েছেন তিনি। সেখানেই তৈরি করেন একটি ঝুপড়ি। সেটাও আজ পানিতে ভাসছে।

জানা গেছে, কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়াড়া ইউনিয়নের হাতিয়াড়া গ্রামের জমির উদ্দিন মোল্যার ছেলে মো. চাঁন মিয়া মোল্যা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ভারতে প্রশিক্ষণ শেষে যশোর এবং নিজ এলাকা ভাটিয়াপাড়ায় সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন তিনি। যুদ্ধ শেষে কোনো কাজ না পেয়ে গ্রামে গ্রামে ভাঙড়ি ফেরি করে জীবিকা নির্বাহ শুরু করেন। তিনি কিছু দিনের মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েন। সে সময়ে পৈতৃক সূত্রে পাওয়া তিন শতক (ভিটা) জমি বিক্রি করে দেন। এরপর থেকে তিনি ভূমিহীন।

সম্বলহীন অসহায় এই বীর মুক্তিযোদ্ধা চলে আসেন কাশিয়ানী উপজেলা সদরে। ১৫-১৬ বছর আগে স্থানীয়দের সহোযোগিতায় চাঁন মিয়া নামে পরিচিত এই মুক্তিযোদ্ধা সরকারি পরিত্যক্ত চরপিংগলিয়া ইটভাটায় স্থান পায়। সেখানেই পরিবার নিয়ে থাকেন চাঁন মিয়া।

বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া বলেন, আমাদের স্বামী-স্ত্রীর প্রতিমাসে চার হাজার টাকার ওষুধ লাগে। আমি এক টুকরা সরকারি জমির জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। উপজেলা প্রশাসনের কাছে অনেকবার আবেদন করে কোনো ফল পাইনি। একটি সরকারি ঘরের জন্য কতজনের কাছেই না গেলাম, কোনো ফল হয়নি। আমি দেশের জন্য নিজের জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে আমার এই অবস্থা।



সাতদিনের সেরা