kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

চাকরির প্রলোভনে তালতলীর কিশোরীকে উজিরপুরে ধর্ষণ

বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২২:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাকরির প্রলোভনে তালতলীর কিশোরীকে উজিরপুরে ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

বরিশালের উজিরপুরে চাকরির প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে বরগুনার তালতলী উপজেলার এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয় গেছে। এ ঘটনায় সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাতে ওই কিশোরী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় এক সন্তানের জনক বরিশাল বিমানবন্দর থানার পাংশা গ্রামের আ. ছালাম হাওলাদারের ছেলে মাসুম হাওলাদারকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার সোবহান পাড়া গ্রামের এক দিনমজুরের কিশোরী কন্যা (১৭) বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে গত রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বরিশালে বান্ধবী ফাতেমার কাছে চাকরির সন্ধানে চলে আসে। ফাতেমা ওইদিন সন্ধ্যায় উজিরপুর উপজেলার হারতা বাজারের ছোট ব্রিজের পাশে স্বপন মন্ডলের বাড়ির ভাড়াটিয়া মাসুম হাওলাদার চাকরি দেওয়ার কথা বলে তাকে নিয়ে যায়। ওই রাতে মাসুম (৩২) কিশোরীকে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। 

সোমবার সকালে মাসুমের দ্বিতীয় স্ত্রী রুমানা ধর্ষণের বিষয় জানতে পেরে ওই কিশোরীকে বরগুনাতে পিত্রালয়ে ফিরে যাওয়ার জন্য ২ হাজার টাকা দিয়ে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু সে বরগুনা না গিয়ে বরিশাল কোতোয়ালি থানায় হাজির হয়ে ওসির কাছে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে জানায়। তিনি বিষয়টি উজিরপুর মডেল থানার ওসি আলী আর্শাদকে জানালে পুলিশ কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে ওই কিশোরী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় মাসুম হাওলাদারকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উজিরপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জসিম উদ্দিন জানান, ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে উজিরপুর মডেলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী আর্শাদ বলেন, কিশোরী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত আসামি মাসুমকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।



সাতদিনের সেরা