kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১।৮ সফর ১৪৪৩

চেংগীর একমাত্র নৌকাটি গেছে ভেসে, পানছড়িতে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকিপূর্ণ পারাপার

পানছড়ি (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১২:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চেংগীর একমাত্র নৌকাটি গেছে ভেসে, পানছড়িতে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকিপূর্ণ পারাপার

কভিড-১৯ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় দীর্ঘ প্রায় আঠারো মাস পর বিদ্যালয়মুখী হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয়ে পাঠদানের ফাঁকে বন্ধুদের সঙ্গে আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে এটাই ছিল ধারণা। কিন্তু ব্যতিক্রমী দৃশ্য দেখা গেল পানছড়ি উপজেলার কানুনগোপাড়া ও প্রদীপপাড়ার বুক চিরে বয়ে চলা চেংগী নদীর পার এলাকায়। চেংগী নদী পার হয়েই প্রদীপপাড়া, কানুনগোপাড়া, হরি গোপালপাড়া, চিত্তরঞ্জন কার্বারীপাড়া, দীনবন্ধুপাড়া, যৌথখামার, বেঙাপাড়া, সিন্ধুকার্বারীপাড়া ও সাঁওতালপাড়া এলাকার শিক্ষার্থী ও শত শত লোকের চলাচলের একমাত্র পথ। 

এলাকার বসন্ত চাকমার ছেলে স্বপন চাকমা দীর্ঘ প্রায় চৌদ্দ বছর ধরে নৌকা দিয়ে শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের বিনা পয়সায় ও এলাকার জনগণ যে যা দেয় তা দিয়েই নিজের সংসার চালাতেন কোনো রকমে। গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে তার নৌকাটি স্রোতে ভাসিয়ে নিলে বিপাকে পড়েন সবাই। আজ ১২ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় খোলার দিনে নদীর ঘাটে দেখা যায় পারাপারের করুণ চিত্র। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের মানবেতর পারপারের দৃশ্য যে কারো মন খারাপ করে দেবে। স্বপন চাকমা বাঁশের ভেলায় রশি বেঁধে টেনে কোমলমতিদের পারাপারের সময় কেউ কেউ পানিতেও পড়ে গেছে। খাগড়াছড়ি টেকনিক্যালে পড়ুয়া দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী কনিকা সাঁওতাল, শিশু শিক্ষার্থী এলটি, সোহেলি, পরান্তি, সুষমিতা, রিপা চাকমা জানায়, অনেক ভয়ে ভয়ে বাঁশের ভেলায় চড়ে কোনো রকমে চেংগী নদী পার হয়েছি। তাদের প্রাণের দাবি জরুরি ভিত্তিতে একটি নৌকা। 

এলাকার কার্বারী সুমাই সাঁওতাল ও সুশীল বিকাশ চাকমা জানান, মুমূর্ষু রোগী কাঁধে করে পার করা ছাড়া অন্য কোনো মাধ্যম নাই। প্রশাসন অন্তত একখানা নৌকা দিলে শিশু ও অন্যরা নির্ভয়ে-স্বাচ্ছন্দ্যে পার হতে পারত। 

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার দেব বলেন, এই প্রতিবেদকের কাছে মানবেতর কাহিনিটা শুনলাম। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে একটা নৌকার ব্যবস্থা করার ব্যাপারে চেষ্টা করবেন বলে জানান তিনি। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাকিবুল হাসান বলেন, আমি সরেজমিনে যাব। জনগণের নদী পারাপারের জন্য ভালো একটা কিছু করার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।



সাতদিনের সেরা