kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৫ কার্তিক ১৪২৮। ২১ অক্টোবর ২০২১। ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

কালিয়াকৈরে বন্ধই থাকছে ২০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কালিয়াকৈরে বন্ধই থাকছে ২০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

আগামীকাল ১২ সেপ্টেম্বর সারা দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললেও ১২২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে খুলছে না ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। নতুন করে বন্যার কারণে ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পানি ওঠায় এবং বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় পাঠদান কাযক্রম শুরু করা যাচ্ছে না।

খোঁজ নিয়ে এবং উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, কালিয়াকৈরের তুরাগ, বংশী, মকশসহ কয়েকটি বিলে বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বন্যাকবলিত এলাকার ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পানি উঠেছে। স্কুলমাঠ পানিতে তলিয়ে আছে। কোথাও কোথাও ক্লাসরুমেই ঢুকে পড়েছে পানি। অথচ দেড় বছর পর শিক্ষার্থীদের নতুন করে বরণ করে নিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো প্রস্তুত হয়ে উঠেছিল। এসব এলাকার সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন, বেঞ্চ, জানালা-দরজা মেরামত, রঙকরণ, বেসিন স্থাপন করা হয়েছে। বিদ্যালয় চারপাশের আঙিনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে।

উপজেলার ঢালজোড়া ইউনিয়নের বাসুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের বারান্দায় বন্যার পানি। রাস্তাও তলিয়ে গেছে। একই অবস্থা ইউনিয়েনে ঢালজোড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাগুরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দেওয়াইর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। এ ছাড়া একই অবস্থা দেখা গেছে উপজেলার বাঁশতলী ও কুন্দাঘাটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

বাঁশতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আলতাফ হোসেন বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুলে ক্লাস করার জন্য সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। স্কুলটি তুরগ নদের পাড় ঘেষা হওয়ায় আর বন্যার পানি বেড়ে যাওয়ায় স্কুলের মাঠে এখন হাঁটু পানি জমে আছে। যার কারণে ক্লাস করানো অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

কালিয়াকৈর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রমিতা ইসলাম বলেন, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর সারা দেশের ন্যায় কালিয়াকৈরেও সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে বন্যার কারণে উপজেলার ১৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় পাঠদান বন্ধ থাকছে। বন্যার পানি নেমে গেলে ওই সব স্কুলে পাঠদান শুরু হবে।



সাতদিনের সেরা