kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সোনারগাঁয় নৌকার টিকিট পেলেন অ্যাডভোকেট সামসুল

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৫:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোনারগাঁয় নৌকার টিকিট পেলেন অ্যাডভোকেট সামসুল

সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুঁইয়া। তিনি সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আগামী ৭ অক্টোবর সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

আজ শনিবার আওয়ামী লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধির মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় তাকে এ মনোনয়ন দেওয়া হয়। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ২২ জুলাই চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশাররফ হোসেন ইন্তেকাল করেন।

১৯৬৪ সালে ছাত্ররাজনীতি থেকে অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূইয়ার পথচলা। ১৯৬৬ সালে তোলারাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৬৯ সালে ছাত্রলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে তোলারাম কলেজ বিজ্ঞান পরিষদের জিএস নির্বাচিত হন। এরপর তিনি ১৯৬৯ সালে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের ঐতিহাসিক ১১ দফা ছাত্র আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭০ সালে ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে সমগ্র ঢাকা জেলায় তৎকালীন জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর জয়লাভের পক্ষে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন।

১৯৭১ সালে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণের সময় বঙ্গবন্ধু কর্তৃক ঢাকা রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর নৈকট্যে থেকে ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করেন।

মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন দেশের অভ্যন্তরে ছাত্র ও যুবসমাজকে বিভিন্ন প্রশিক্ষণসহ স্বাধীন বাংলার জাতীয় পতাকা গ্রামগঞ্জে পৌঁছে দেওয়া ও বিভিন্নস্থানে পাকিস্তানি পতাকা নামিয়ে পুড়িয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি হিসাবে যোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন।

১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক স্বাধীনতা ঘোষণার পর মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে এপ্রিলের শেষদিকে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে আগরতলা মুক্তিযোদ্ধা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র 'গোকুল নগর ইয়থ ক্যাম্প' এ দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে প্রায় ৮০ হাজার যুবককে মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণে ভূমিকা রেখেছেন। এরপর মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ে বিজয় ছিনিয়ে আনতে নিজের জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন। তিনি ১৯৬৪ সাল থেকে অদ্যবধি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতির জড়িত।

অ্যাড. সামসুল ইসলাম ভুইঁয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমার দীর্ঘদিনের রাজনীতি বিশ্লেষণ করেই আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। নেত্রীর আস্থার প্রমাণ করার জন্য সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীর সহযোগিতা একান্ত কাম্য। 



সাতদিনের সেরা