kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১।৮ সফর ১৪৪৩

'প্রধানমন্ত্রী হামাক পাকা ঘর দিবে চিন্তা করিবা পারো নাই'

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৯:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'প্রধানমন্ত্রী হামাক পাকা ঘর দিবে চিন্তা করিবা পারো নাই'

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া উপহার পেয়ে মুখে রঙিন হাসি বৃদ্ধা অলি বালার (৭৫)। এই বয়সে এসে তিনি প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাবেন কোনো দিন ধারণা করতে পারেননি। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে দুই শতক জায়গার ওপর নির্মিত দৃষ্টিনন্দন একটি ঘর পেয়েছেন তিনি।

উপকারভোগী অলি বালা বলেন, বাপু এই বয়সে প্রধানমন্ত্রী হামাক পাকা ঘর দিবে কোনো দিন চিন্তা করিবা পারো নাই। একসময় হামার ঘরে অনেক কষ্ট গেছে। মোর বাপু দুই বেটা তিন মেয়ে। দুইটা বেটা সংসার খুব কষ্ট করে চলেছে। সময়তে সময়তে বেটা মোক দেখে। সরকার হামাক ঘর দিছে। এটা তো মুই বাপু এই বয়সে চিন্তা করিবা পারো নাই।

আজ সোমবার সকালে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার ৬ নম্বর রনগাঁও ইউনিয়নে শ্রীমন্তপুর গ্রামে আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসরত পরিবারগুলোর খোঁজখবর নিতে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের খাদ্যসামগ্রী নিয়ে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছন্দা পাল। সেখানে তিনি অসহায় মানুষের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের খাদ্যসমাগ্রী তুলে দেন।

বোচাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছন্দা পাল বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের গৃহগুলো প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার খুঁজে তাদের দেওয়া হয়েছে। এসব উপকারভোগী প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের  ঘর পেয়ে অনেক খুশি।

বোচাগঞ্জ উপজেলায় প্রথম পর্যায়ে ৪৩০টি উপকারভোগী ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার ঘর পেয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে  ১০০টি পরিবার ভূমিহীন ও গৃহহীন ঘর পেয়েছে।



সাতদিনের সেরা