kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

আমিরাতে আর ফেরা হলো না মাসুদের, ট্রাকই কেড়ে নিল প্রাণ!

রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৮:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমিরাতে আর ফেরা হলো না মাসুদের, ট্রাকই কেড়ে নিল প্রাণ!

সংযুক্ত আরব আমিরাতে আর ফেরা হলো না রাউজানের মো. মাসুদের। চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের রাউজানে নোয়াপাড়া এলাকায় ড্রাম ট্রাকের ধাক্কায় চলে গেল তার তাজা প্রাণ। তিনি উপজেলার পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মগদাই মধ্যমপাড়ার আবদুল হাকিম সারাংয়ের বাড়ির মো. লোকমানের ছেলে। কিছুদিন আগে স্ত্রীসহ রাঙ্গুনিয়া শান্তিরহাট এলাকায় বেড়াতে গিয়েছিলেন মাসুদ। 

জানা গেছে, রবিবার রাত ৮টার দিকে মাসুদের চাচার শ্যালকের মেহেদি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য রাঙ্গুনিয়া থেকে মোটরসাইকেল চালিয়ে নোয়াপাড়া ফিরছিলেন তিনি। তার মা নোয়াপাড়া পথেরহাটে তার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। নোয়াপাড়া থেকে মা-ছেলে একসঙ্গে অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা ছিল। মাসুদ মোটরসাইকেল চালিয়ে নোয়াপাড়া পথেরহাটের পূর্ব পাশে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২-এর নোয়াপাড়া জোনাল অফিস পার্শ্ববর্তী এলাকায় পৌঁছলে একটি ডাম ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়েন মাসুদ। এতে মাসুদ গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে পথেরহাটের একটি ক্লিনিকে, এরপর চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একই রাতে (রবিবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে) মাসুদ মারা যান। সোমবার তার লাশ দাফন করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাসুদ পরিবারে তিন পুত্রসন্তানের মধ্যে সবার বড়। মাসুদ সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ প্রদেশে একটি কম্পানিতে ইলেকট্রিকের কাজ করতেন। ৮ মাস আগে ছুটিতে দেশে আসার পর করোনা পরিস্থিতির কারণে ফ্লাইট বন্ধ থাকায় প্রবাসে ফেরার অপেক্ষায় ছিলেন। মাত্র সাড়ে চার মাস আগে তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। 

রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, ‘ড্রাম ট্রাকের ধাক্কায় ওই লোকটি মারা গেছে। ট্রাকটি আটক করা হয়েছে।’



সাতদিনের সেরা