kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

আনুষ্ঠানিকভাবে ঘুষের টাকা ফেরত! প্রাপক বললেন 'মানবতা বেঁচে আছে'

দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২১:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আনুষ্ঠানিকভাবে ঘুষের টাকা ফেরত! প্রাপক বললেন 'মানবতা বেঁচে আছে'

আনুষ্ঠানিকভাবে ঘুষের টাকা ফেরত দিচ্ছেন ভূমি ভূমি উপ-সহকারী মো. আলাল উদ্দীন।

ঘুষের টাকা পাওনাদারদের ফিরিয়ে দিলেন সদ্যবিদায়ী হাতিভাঙ্গা ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী মো. আলাল উদ্দীন। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এসব টাকা ফেরত দেন। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হাতিভাঙ্গা ইউনিয়নের সদ্যবিদায়ী ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা প্রধানমন্ত্রীর উপহার মুজিববর্ষের সরকারি ঘর এবং ভূমি খারিজসংক্রান্ত অন্যান্য কাজ করে দেওয়ার নামে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণ করেন। এর মধ্যে তার বদলির খবর ছড়িয়ে পড়লে ১ সেপ্টেম্বর তারিখ থেকে পরদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত তাকে কার্যালয়ে আটক করে রাখে ঘুষদাতারা। এ সময় তারা ঘুষের টাকা ফেরত চান। এ নিয়ে কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ হয়।

বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার শর্তে তাকে মুক্ত করেন ইউএনও এ কে এম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ। সেই শর্ত অনুযায়ী গতকাল সন্ধ্যায় ৪০ জনকে তিন লাখ ৪৫ হাজার টাকা ফেরত দেন তিনি।

পাওনা টাকা ফেরত পেয়ে ভুক্তভোগীরা জানান, তারা ধরেই নিয়েছিলেন এই টাকা পাওয়া যাবে না। টাকা পেয়ে খুশি তারা। এ জন্য তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পাওনাদার বলেন, 'মানবতা আজো বেঁচে আছে। এই টাকা পাব কখনো ভাবিনি। আর এই ফাঁদে পা দেব না।'

ঘুষগ্রহীতা আলাল উদ্দিন বলেন, যাদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে তাদের ফেরত দেওয়া হয়েছে। আরো যদি কেউ প্রমাণ দিতে পারেন তাকেও টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

দেওয়ানগঞ্জ ইউএনও এ কে এম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ কালের কণ্ঠকে বলেন, পাওনাদারদের টাকা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। বাকি যদি কেউ থেকে থাকে প্রমাণসাপেক্ষে তাদের টাকাও ফেরত দেওয়া হবে। আর এ বিষয়ে তদন্তে যদি সে দোষী প্রমাণিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



সাতদিনের সেরা