kalerkantho

বুধবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৮। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২১ সফর ১৪৪৩

চারদিকে পানি থৈথৈ, তার মাঝে গাছে নারীর দেহ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৭:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চারদিকে পানি থৈথৈ, তার মাঝে গাছে নারীর দেহ!

চারদিকে বন্যার পানি। তিন ফুট পানির নিচে একটি পিটাহরিগাছ। সেই গাছের ডালে ঝুলে আছে এক নারীর মরদেহ। জিন-ভূতের ভয়ে প্রতিবেশী, এমনকি পরিবারের কেউ মরদেহ উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি। খবর পেয়ে ইরিনা বেগম (৪৫) নামের ওই নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) বগুড়ার সোনাতলা থানার বালিয়াডাঙ্গা উত্তরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। উদ্ধারকৃত নারী আনসার সদস্য সানোয়ার হোসেনের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার সন্ধ্যার পর ওই নারী বাড়ির বাইরে যান। এরপর রাতে আর বাড়ি ফেরেননি। দুই ছেলে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও সন্ধান পায়নি। চারদিকে বন্যার পানি থাকায় বেশি দূরে খুঁজতে পারেনি তারা। রবিবার সকাল থেকে দুই ছেলেসহ প্রতিবেশীরা ইরিনা বেগমের সন্ধান শুরু করে। দুপুর ১২টার দিকে চারদিকে বন্যার পানির মধ্যে একটি পিটাহরিগাছের ডালে ঝুলন্ত মরদেহের সন্ধান পাওয়া যায়। সমতল থেকে তিন ফুট পানি। সেখানে আরো ২-৩ ফুট উচ্চতায় মরদেহের পা গাছের সঙ্গে ঝুলে থাকতে দেখে তারা।

খবর পেয়ে সোনাতলা থানার ওসি রেজাউল করিম থানার পুলিশ সদস্যদের সহযোগিতায় গাছ থেকে মরদেহ উদ্ধার করেন। তবে এরপর মরদেহ কেউ ধরতে চাচ্ছিলেন না। এমনকি ওই নারীর পরিবারেরও কেউ এগিয়ে আসেনি। একপর্যায় ওসি নিজেই এক পুলিশ সদস্যকে নিয়ে মরদেহ নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেন। পরে দুই একজন এগিয়ে আসলে তাদের সহযোগিতায় মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়।

সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, তিন ফুট বন্যার পানিতে গাছে সেই গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় মরদেহ। আত্মহত্যা করলে গাছে উঠে গাল রশি দিয়ে ঝুলতে হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে নানা জনের নানা মত। এ কারণে ময়নাতদন্ত করতে মর্গে মরদেহ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছে। 



সাতদিনের সেরা