kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

কুলাউড়ায় মাইক্রোবাসটিকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে গেল ট্রেন, শিশুসহ নিহত ২

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৬:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কুলাউড়ায় মাইক্রোবাসটিকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে গেল ট্রেন, শিশুসহ নিহত ২

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় পারাবত এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে শিশুসহ দুজন মারা গেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। আহত হয়েছে ৬ জন। হতাহতদের সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার সীমান্তবর্তী ভাটেরার হোসেনপুর এলাকায় সিলেট-আখাউড়া রেলসেকশনে এ ঘটনাটি ঘটে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী জসিম উদ্দিনসহ বেশ কয়েকজন জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভাটেরা রেলস্টেশন অতিক্রম করার পর হোসেনপুর এলাকায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একটি মাইক্রোবাস (নোহা) গাড়ি রেললাইন ক্রস করার সময় সজোরে ধাক্কা খায়। এ সময় ট্রেনটি প্রায় অর্ধকিলোমিটার দূরে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায় মাইক্রোবাসটিকে। 

এ ঘটনায় ফরিদ উদ্দিন (৫২) ও আফিফ নামে ৮ বছরের এক শিশু মারা গেছে। গাড়িতে থাকা অন্য ৬ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আহতরা হলেন কামাল মিয়া (৪০), লিলি বেগম (৪০) বিজু বেগম (২০), রাবু বেগম (২৪), জাহানারা ও লাবিব (৬)। 

নিহতদের স্বজন ভাটেরা ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামের বাসিন্দা রুয়েল আহমদ ও রুনেল আহমদ জানান, আজ রবিবার তাদের ভাতিজা সুহেল আহমদের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল। বিয়েতে অংশ নেওয়ার জন্য সিলেটের আম্বরখানা লোহাপাড়া থেকে দুটি মাইক্রোবাস (নোহা) গাড়িতে তাদের আত্মীয়রা এসেছিলেন। পথিমধ্যে বাড়িতে আসার আগেই হোসেনপুর গ্রামে প্রবেশের সময়কালে প্রথমে একটি গাড়ি রেললাইন অতিক্রম করে ফেলে। এরপর দ্বিতীয় গাড়িটির দুটি চাকা রেললাইন অতিক্রম করার সময় রেললাইনের ওপর আটকা পড়ে। গাড়িতে মোট ৯ জন যাত্রী ছিলেন। তখন পারাবত ট্রেনটি গাড়িটিকে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সিলেট হাসপাতালে আহতদের সাথে থাকা তাদের স্বজন এনাম উদ্দিন বলেন, আমাদের পরিবারের দু’জন সদস্য মারা গেছেন। গাড়িতে থাকা অন্য স্বজনদের ওসমানী হাসপাতাল থেকে এখন আল হারামাইন হাসপাতালের আইসিইউতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদেক কাওসার দস্তগীর, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল মোল্লা, অফিসার্স ইনচার্জ বিনয় ভূষণ রায়, ওসি (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলামসহ ফায়ার সার্ভিসের  সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রুয়েল আহমদ জানান, ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত দুজনের মরদেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। 

সিলেট রেলওয়ে পুলিশ সুপার শেখ শরীফুল ইসলাম জানান, যে রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে এটি অবৈধ রেলগেইট। অসাবধনতাবশত কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি।

কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিনয় ভূষণ রায় স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বলেন, দুজন মারা গেছেন। ছয়জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতদের স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে সঠিক তথ্য জানার চেষ্টা করছি। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, স্বজনদের সাথে আলাপ করে জেনেছি হতাহতরা হোসেনপুরে বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সিলেট থেকে এসেছিলেন। তাৎক্ষণিক স্থানীয়দের সহযোগিতায় নিহত ও আহতদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা