kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সাইনবোর্ড বসিয়ে জমি দখলের অভিযোগ

মোশাররফ হোসেন, সাতক্ষীরা    

৩১ আগস্ট, ২০২১ ১০:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সাইনবোর্ড বসিয়ে জমি দখলের অভিযোগ

সাতক্ষীরায় শোকের মাসে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সাইন বোর্ড দিয়ে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। কালিগঞ্জে উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মাদারতলা-রঘুনাথপুর সড়কের পাশে সাইনবোর্ডটি টানিয়ে গরীব কৃষকের বাড়িসহ ওই জমিটি দখল করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে জমির মালিক উপজেলার মানপুর গ্রামের মৃত আছের আলীর ছেলে আওয়াল হোসেন কালিগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। 

মানপুর গ্রামের মৃত আছের আলীর ছেলে আওয়াল হোসেন জানান, উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের
রঘুনাথপুর মৌজার ১৭৭৯  নম্বর দাগে মাদারতলা এলাকায় তার নিজ নামের জমি আছে। তিনি দীর্ঘদিন জমিটির ভোগদখলে আছেন। সম্প্রতি রঘুনাথপুর গ্রামের কওছার হোসেন নামের এক ব্যক্তি ওই জমি তার বলে দাবি করে দখল করার চেষ্টা করেন। এতে ব্যর্থ হয়ে তিনি ১৫ দিন আগে টাকা বিনিময়ে স্থানীয় নেশাখোর, মাস্তান, গুণ্ডা ও বদমায়েশ চরিত্রের লোকজন দিয়ে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সাইনবোর্ড বসিয়ে জমি দখল করে নেন। ওই জমিতে ভুক্তভোগী আওয়ালের বসবাসের জন্য বাড়িঘরও আছে। ক্লাব ঘর বানিয়ে জমি দখল করায় তাদের চলাচলের রাস্তাটিও বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি ওই সব নেশাখোর সন্ত্রাসীদের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার উত্তর রঘুনাথপুর গ্রামের লোকমান মোড়লের ছেলে অন্যের জমিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সাইন বোর্ড লাগিয়ে জমি দখলের মূল হোতা। তিনি ওই স্মৃতিসংঘের স্বঘোষিত সভাপতিও। জমি দখলকারি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের সভাপতি আলতাফ হোসেন নিজেকে আওয়ামী লীগের
ত্যাগী কর্মী পরিচয় দিয়ে বলেন, জমিটি সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত। জমির কোনোপ্রকার কাগজপত্র ছাড়া দখলের বিষয় স্বীকার করে জানান, সরকারি খাসজমি দখল করে নিয়ে আমি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘ প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছি। স্মৃতি সংঘে বসে মানুষ বঙ্গবন্ধুর সততা ও আদর্শ সর্ম্পকে জানতে পারবে।

এ বিষয়ে স্থানীয় জয়পত্রকাঠি ইউনিয়ন সহকারী (ভূমি) কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন বলেন, ওই জমি মালিকানাধীন। এর পরও জমিটি যদি সরকারের হয় তাহলে বসতঘর অথবা ক্লাব নির্মাণ করতে হলে অবশ্যই ইজারা নিতে হবে।

কালিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম বলেন, অন্যের জমি অথবা সরকারি খাসজমি দখল করে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর  নামে কোনো প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা রাষ্ট্রীয়ভাবে অন্যায়। সরকারের দুর্নাম করার জন্য চাঁদাবাজ নেশাখোর মাস্তানরা বিভিন্ন
সংগঠন তৈরির নামে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার চেষ্টা করছে।

কালিগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আশিষ কুমার হালদার জানান, ২৯ আগস্ট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও জমিজমা সংক্রান্ত পুলিশের কিছু করার নেই।

আওয়াল হোসেনের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জমিজমা মেপে দু’পক্ষকে স্থানীয়ভাবে মীমাংসা জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে। 



সাতদিনের সেরা