kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ভাঙন

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

৩০ আগস্ট, ২০২১ ১৯:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ভাঙন

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ৪ নম্বর ফেরিঘাট ও পাশের সিদ্দিক কাজীরপাড়া গ্রাম এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে। আজ সোমবার সকাল থেকে ভাঙনের কবলে পড়ে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায় স্থানীয় জামে মসজিদসহ ওই গ্রামের ৮ পরিবারের বসতভিটা ও অনেক গাছপালা।

ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেতে গ্রামবাসীদের অনেকেই তাদের ঘরবাড়ি ভেঙে, গাছপালা কেটে পূর্বপুরুষের ভিটেমাটি ছেড়ে নিরাপদ স্থানে সরে যাচ্ছেন।

আজ সকাল ৬টা পর্যন্ত চব্বিশ ঘণ্টায় পদ্মা নদীর গোয়ালন্দ পয়েন্টে দুই সেন্টিমিটার পানি বেড়ে বিপৎসীমার ৪৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার (পানি পরিমাপক) সালমা খাতুন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, পদ্মার প্রবল স্রোতে ও পানির ঘূর্ণিপাকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় নদীভাঙন দেখা দিয়েছে।

এদিকে, দৌলতদিয়া ঘাটে কর্মরত বিআইডাব্লিউটিএ’র সহকারী প্রকৌশলী মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘৪ নম্বর ফেরিঘাটটি ভাঙন হুমকির মুখোমুখী হয়ে আছে। ভাঙনের তীব্রতা দেখে মনে হচ্ছে, যেকোনো সময় ঘাটটি পদ্মায় বিলীন হতে পারে।’ সেখানে বালুভরা জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে ভাঙন রোধের চেষ্টা চালাচ্ছে বিআইডাব্লিউটিএ’র কর্মীরা। 

গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা মুন্সী বলেন, ‘দৌলতদিয়া ফেরিঘাট থেকে উজানে অন্তারমোড় পর্যন্ত পদ্মার পাড়ে বেড়িবাঁধ নির্মাণ এলাকার গণমানুষের দীর্ঘদিনের দাবি রয়েছে। বৃহত্তর জনস্বার্থ বিবেচনায় বাঁধটি দ্রুত নির্মাণ করা গেলে গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া ফেরিঘাটসহ গোটা গোয়ালন্দ উপজেলা এলাকা ভাঙনের হাত থেকে স্থায়ীভাবে রক্ষা পাবে।’



সাতদিনের সেরা